kalerkantho

শুক্রবার । ৩ বৈশাখ ১৪২৮। ১৬ এপ্রিল ২০২১। ৩ রমজান ১৪৪২

গণফোরামের ভাগ্য নির্ধারণ আজ!

প্রেস ক্লাবে দুই গ্রুপ মুখোমুখি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ মার্চ, ২০২১ ০৩:১৩ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



গণফোরামের ভাগ্য নির্ধারণ আজ!

ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন গণফোরামের ভাগ্য নির্ধারণ আজই ঘটে যেতে পারে। কারণ বিবদমান দুই অংশ জাতীয় প্রেস ক্লাবে আজই মুখোমুখি হতে যাচ্ছে।

বিকেল ৩টায় ক্লাবের জহুর হোসেন হলে সংবাদ সম্মেলন ডেকেছে দলের একটি অংশ; যেখানে ড. কামাল হোসেন ও মোকাব্বির খান সমর্থিত অংশ উপস্থিত থাকছে বলে গতকাল এক সংবাদে জানানো হয়েছে। মোকাব্বির খানের সমর্থক বলে পরিচিত ওই সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে স্বাক্ষর করেছেন ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আ ও ম শফিকউল্লাহ। মোকাব্বির খান ভবিষ্যতে দলের সভাপতি হতে চাইছেন বলে গণফোরামে আলোচনা আছে।

অন্যদিকে একই সময় বিকেল ৩টায় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি নিয়ে অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মন্টু সমর্থিত অংশের। মন্টু ছাড়াও অধ্যাপক আবু সাইয়িদ ও অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরীসহ অনেকের উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে ওই কর্মসূচিতে। কারা হেফাজতে লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যু ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবিতে ‘যুব গণফোরাম ও ঐক্যবদ্ধ ছাত্রসমাজে’র উদ্যোগে এই কর্মসূচি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু বস্তুত ড. কামাল হোসেনের পাল্টা কর্মসূচি হিসেবে এই কর্মসূচি দেওয়া হয়েছে বলে অন্য অংশ মনে করছে।

জানতে চাইলে মোকাব্বির খান গতকাল কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ড. কামাল হোসেন সংবাদ সম্মেলন করার ঘোষণা দেওয়ার পর তাঁরা মানববন্ধন কর্মসূচি দিলেন। এটি পায়ে পারা দিয়ে ঝগড়ার শামিল।’ তিনি বলেন, ‘গত ৫০ বছরে মন্টু সাহেবের কোনো পরিবর্তন হয়নি; এটি তার প্রমাণ।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘ওনাদের আগেও একবার বহিষ্কার করা হয়েছিল। তবে এবার সিনিয়র নেতাদের পরামর্শ অনুয়ায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

জানতে চাইলে মোস্তফা মহসীন মন্টু কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘মানববন্ধনের সঙ্গে ড. কামালের সংবাদ সম্মেলনের কোনো সম্পর্ক নেই। এটি ভিন্ন ইস্যুতে নেওয়া হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘মোকাব্বির খান এমন কোনো কেউকেটা নন যে তাঁকে কেন্দ্র করেই পাল্টা কর্মসূচি দিতে হবে। তাঁকে লন্ডন থেকে ধরে এনে গণফোরামের মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। তা ছাড়া এমপি কিভাবে হয়েছেন তাও সবাই জানেন।’

জানা গেছে, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি মন্টু সমর্থিত অংশের ডাকা বর্ধিত সভার পাল্টা প্রতিক্রিয়া হিসেবে আজ সংবাদ সম্মেলন ডেকেছেন ড. কামাল হোসেন। তিনি সংসদ সদস্য মোকাব্বির খান ও শফিক উল্লাহ অংশকে সমর্থন করছেন বলে জানা গেছে। সংবাদ সম্মেলনের আগে আজ সকাল ১১টায় মতিঝিলে নিজ চেম্বারে ওই অংশের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক ও পরামর্শ করে করণীয় নির্ধারণ শেষে ড. কামাল সংবাদ সম্মেলনে অংশ নেবেন। দলের দুই অংশের বিবাদের মধ্যে তিনি আজ তাঁর অবস্থান ঘোষণা করবেন। নির্ভরযোগ্য একটি সূত্রের দাবি, মন্টু সমর্থিত অংশকে তিনি বহিষ্কারও করতে পারেন।

দুই অংশের বিরোধের সূত্র ধরে এর আগে এই অংশের নেতাদের আরো একবার বহিষ্কার করা হয়েছিল। কিন্তু গত ডিসেম্বরে দলকে ঐক্যবদ্ধ করার উদ্যোগ নিয়েও ড. কামাল হোসেন শেষ পর্যন্ত সফল হতে পারেননি। তিনি একেক সময় একেক অংশের পরামর্শে চলে সময়ক্ষেপণ করেছেন। এখন তিনি মোকাব্বির খান সমর্থিত অংশের পরামর্শে চলছেন বলে তাঁর বিরোধীরা মনে করেন। ফলে শেষ পর্যন্ত মন্টু সমর্থিত অংশ ক্ষুব্ধ হয়ে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি জাতীয় প্রেস ক্লাবে বর্ধিত সভা ডেকে দলের কাউন্সিলের তারিখ ঘোষণা করে। ওই সভায় অবশ্য সভাপতির পদ থেকে ড. কামাল হোসেনকে বাদ দেওয়ার প্রস্তাব করেন সাবেক নির্বাহী সভাপতি মহসিন রশীদ। এ ঘটনায় ড. কামাল হোসেন ক্ষুব্ধ হয়েছেন বলে জানা গেছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা