kalerkantho

মঙ্গলবার । ৭ বৈশাখ ১৪২৮। ২০ এপ্রিল ২০২১। ৭ রমজান ১৪৪২

ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা, মহিলা পরিষদের বিচার দাবি

অনলাইন ডেস্ক   

৪ মার্চ, ২০২১ ২১:৪৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা, মহিলা পরিষদের বিচার দাবি

নেয়াখালীর সুবর্ণচরের চরজুবলী ইউনিয়নের চর জিয়াউদ্দিন গ্রামে ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রী অপমান সহ্য করতে না পেরে বিষপানে আত্মহত্যার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করে ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত চেয়ে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ বিবৃতি দিয়েছে। এতে জড়িতদের যথাযথ শাস্তি এবং স্কুলছাত্রী পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবিও করা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, গত ৩ মার্চ বিভিন্ন দৈনিক সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদে জানা যায় যে, নেয়াখালী জেলার সুবর্ণচরের চরজুবলী ইউনিয়নের চর জিয়াউদ্দিন গ্রামে ধর্ষণের শিকার চরজব্বার শহীদ জয়নাল আবেদীন উচ্চ বিদ্যালয়ের স্কুলছাত্রী বিষপানে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। জানা যায় যে, স্কুলছাত্রী মা-বাবা গাজীপুরের একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করেন। বাড়িতে দুই মেয়েকে তাদের নানির কাছে রেখে যান। ঘটনার সময় ঐ মেয়ের নানি তার ছোট বোনকে নিয়ে এলাকার অন্য বাড়িতে গেলে এ সুযোগে সদর উপজেলার টক্কর এলাকার জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে রুবেল তাকে গত ২৮.০২.২০২১ তারিখ রবিবার দুপুর ১২টার দিকে স্কুলছাত্রীকে বাড়িতে একা পেয়ে ধর্ষণ করে। এ অপমান সইতে না পেরে ঐদিন সন্ধ্যা ৭টার দিকে সে বিষপান করলে তাকে সুবর্ণচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয় এবং তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে ০১.০৩.২০২১ তারিখ সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টায় দিকে স্কুলছাত্রী মারা যায়।

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আমরা লক্ষ্য করছি যে, নোয়াখালী জেলার সুবর্ণচর, চরজব্বার ও বেগমগঞ্জসহ বিভিন্ন এলাকায় প্রতিনিয়ত কিশোরী, তরুণী ও নারীরা যৌন নিপীড়ন, ধর্ষণ, দলবদ্ধ ধর্ষণ, আত্মহত্যা ও হত্যাসহ নৃশংস নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। এছাড়াও সারা দেশে ধর্ষণ, দলবদ্ধ ধর্ষণ এবং ধর্ষণের পর হত্যা উদ্বেগজনকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। এমনকি ঘরের ভেতরেও শিক্ষার্থী, কিশোরী ও নারীরা বখাটেদের দ্বারা হামলার শিকার হচ্ছে। যা দেশের সার্বিক অগ্রযাত্রাকে ব্যাহত করার পাশাপাশি আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতিকে প্রশ্নবিদ্ধ করে। অব্যাহত নারী ও কন্যা নৃশংস নির্যাতনের ঘটনায় বিচার প্রক্রিয়ায় দীর্ঘ সূত্রিতা ও বিচারহীনতার সাংস্কৃতি চলতে থাকায় দূর্বৃত্তদের অভয় অরন্যে পরিনত হয়েছে এবং তারা ধরা ছোঁয়ার বইরে থেকে যাচ্ছে। এই পরিস্থিতি থেকে উত্তোরণের জন্য নারীর প্রতি বর্বর ও নৃশংস সহিংসতা এবং ধর্ষণের বিরুদ্ধে শূন্য সষ্ণিতার নীতি গ্রহণ সাপেক্ষে আশু কার্যকর বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকার, প্রশাসনের বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষণ করছে।’

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ এ ঘটনায় গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করছে জানিয়ে ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে জড়িতদের যথাযথ শাস্তির লক্ষ্যে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণসহ স্কুলছাত্রীর পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের জোর দাবি করেছে।

এছাড়া হাইকোর্ট বিভাগের রায়ের আলোকে শাস্তিনিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য সরকার ও সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানায় সংগঠনটি। সেইসাথে নারীর প্রতি সকল প্রকার সহিংসতা প্রতিরোধে সকল সামাজিক শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছে মহিলা পরিষদ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা