kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৭ বৈশাখ ১৪২৮। ১০ মে ২০২১। ২৭ রমজান ১৪৪২

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ঐতিহাসিক পতাকা উত্তোলন দিবস পালিত

অনলাইন ডেস্ক   

২ মার্চ, ২০২১ ১৬:০৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ঐতিহাসিক পতাকা উত্তোলন দিবস পালিত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ঐতিহাসিক পতাকা উত্তোলন দিবস উদযাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে সীমিত পরিসরে কলাভবন সংলগ্ন বটতলায় এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। এ সময় সংগীত বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা জাতীয় সংগীত পরিবেশন করেন। কলা অনুষদের ডিন ও অনুষ্ঠানের সমন্বয়ক অধ্যাপক ড. আবু মো. দেলোয়ার হোসেন স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

এ সময় প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মো. নিজামুল হক ভূইয়া, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভিন্ন হলের প্রভোস্ট, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, প্রক্টরসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সমিতির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ সকল শহীদের অমর স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে বলেন, মার্চ মাস আমাদের মহান স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব, জাতিরাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা ও গৌরবের মাস। ১৯৭১ সালের অগ্নিঝরা এই মার্চ মাসে ২ মার্চ পতাকা উত্তোলন, ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণ, ২৬ মার্চ বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার ঘোষণাসহ অনেকগুলো ঐতিহাসিক ঘটনা ঘটেছে। তাই অনেকগুলো ঘটনার স্বাক্ষী এই ঐতিহাসিক মার্চ মাসের বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে।

উপাচার্য আরো বলেন, স্বাধীনতা সংগ্রামের পথ পরিক্রমায় ১৯৭১ সালের ২ মার্চ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পতাকা উত্তোলনের ঐতিহাসিক ঘটনাটি আমাদের স্বাধীন ও সার্বভৌম জাতিরাষ্ট্র গঠনের ইঙ্গিত দিয়েছিল। জাতিরাষ্ট্র সৃষ্টিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনন্য অবদান রয়েছে। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের মূল প্রেরণার উৎস বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ, যা আজ আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। বঙ্গবন্ধুর এই ঐতিহাসিক ভাষণ যুগ যুগ ধরে সকলকে এবং বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীকে অনুপ্রেরণা দিয়ে আসছে।

তিনি বলেন, ২০২১ সালে মুজিব জন্মশতবর্ষ, স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ উদ্যাপন হচ্ছে। তাই এটি এক অনন্য সাধারণ বছর। উপাচার্য স্বাধীনতার মৌলিক দর্শন ও চেতনা ধারণ করে উদার, অসাম্প্রদায়িক ও মানবিক মূল্যবোধ সম্পন্ন মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে নতুন প্রজন্মের প্রতি আহ্বান জানান।



সাতদিনের সেরা