kalerkantho

শুক্রবার । ৩ বৈশাখ ১৪২৮। ১৬ এপ্রিল ২০২১। ৩ রমজান ১৪৪২

বিক্ষোভকারীদের গ্রেপ্তারের নিন্দা আসকের, মুক্তি দাবি

অনলাইন ডেস্ক   

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৮:১৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিক্ষোভকারীদের গ্রেপ্তারের নিন্দা আসকের, মুক্তি দাবি

কারাবন্দি লেখক মুশতাক আহমদের মৃত্যুর পর বিক্ষোভ কর্মসূচিতে পুলিশের লাঠিপেটা এবং গ্রেপ্তারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে গ্রেপ্তারকৃতদের মুক্তির দাবি জানিয়েছে আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক)। এছাড়া কারা হেফাজতে লেখক মুশতাক আহমদের মৃত্যুর ঘটনার সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য তদন্ত নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

আজ রবিবার আসক থেকে পাঠানো এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, কারাবন্দি লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর ঘটনায় রাজধানীর শাহবাগে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ কর্মসূচিতে পুলিশের লাঠিপেটা ও কাঁদনে গ্যাসের সেল নিক্ষেপ এবং পরবর্তী সময়ে বিক্ষোভকারী ছাত্রনেতাদের মধ্যে সাতজনকে গ্রেফতারের ঘটনা ঘটে। অন্যদিকে লেখক মুশতাককে নিয়ে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ার অভিযোগে খুলনায় বাসদ নেতা রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তারসহ তাঁকে রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। আইন ও সালিশ কেন্দ্র এসব ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। একইসঙ্গে রুহুল আমিনসহ গ্রেফতারকৃত আন্দোলনকারীদের অনতিবিলম্বে মুক্তি দেওয়ার দাবি জানানো হয়েছে।

আসক জানিয়েছে, লেখক মুশতাককে নিয়ে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ার অভিযোগে খুলনায় বাসদ নেতা রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতারসহ তাঁকে রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।  
 
আসক মনে করে, বর্তমানে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সরকার ও রাষ্ট্রযন্ত্রের দমন-নিপীড়নের সুবিধার্থে ক্রমান্বয়ে মানুষের মুক্তচিন্তার অধিকার হরণের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। একইসঙ্গে প্রায়শ বিভিন্ন প্রতিবাদ কর্মসূচিতে আন্দোলনকারীদের ওপর পুলিশের অতিরিক্ত শক্তিপ্রয়োগ ও তাদের নানাভাবে হেনস্তা করা হচ্ছে যা সংবিধানে স্বীকৃত সভাসমাবেশের অধিকারের লঙ্ঘণ। এভাবে মানুষের মতপ্রকাশ ও প্রতিবাদ সমাবেশ করার অধিকার চরমভাবে লঙ্ঘন করা কোনোভাবেই গণতান্ত্রিক আচরণ নয়। আসকের তীব্র প্রতিবাদ জানায়।

আসক থেকে একটি প্রতিনিধিদল লেখক মুশতাকের মৃত্যু সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহের জন্য ২৭ ফেব্রুয়ারি কাশিমপুর কারাগার কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে তাদের দীর্ঘক্ষণ বসিয়ে রেখে করোনার কারণে দেখা করা সম্ভব নয় বলে কারা কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে জানানো হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা