kalerkantho

সোমবার । ২৯ চৈত্র ১৪২৭। ১২ এপ্রিল ২০২১। ২৮ শাবান ১৪৪২

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রশিক্ষনার্থী ৩৪ হাজার শিক্ষকের

২২ ফেব্রুয়ারির ডিপিএড কোর্সের পরীক্ষা পেছাতে সরকারকে আইনি নোটিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৯:০৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



২২ ফেব্রুয়ারির ডিপিএড কোর্সের পরীক্ষা পেছাতে সরকারকে আইনি নোটিশ

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রশিক্ষণার্থী শিক্ষকদের আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য ডিপিএড কোর্সের পরীক্ষা পেছানোর দাবিতে সরকারকে আইনি নোটিশ দেওয়া হয়েছে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব, স্বাস্থ্য সচিব, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ও জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমীর (ন্যাপ) মহাপরিচালককে এ নোটিশ দেওয়া হয়েছে। নোটিশ পাওয়ার ২৪ ঘন্টার মধ্যে আগামী ২২ ফেব্রুয়ারির পরীক্ষা স্থগিত করতে বলা হয়েছে। অন্যথায় সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে নোটিশে বলা হয়েছে। সারাদেশে ৩৪ হাজার শিক্ষকের পক্ষে বুধবার এ নোটিশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ছিদ্দিক উল্লাহ মিয়া এ নোটিশ দিয়েছেন।

গত ১০ ফেব্রুয়ারি ডিপিএড ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের চূড়ান্ত লিখিত পরীক্ষার সময়সূচি ঘোষনা করে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমী। এই সময়সূচী স্থগিত করে নতুন করে সূচী দিতে অথবা পরীক্ষা ছাড়াই ফল ঘোষনার আবেদন জানানো হয়েছে আইনি নোটিশে।

এবিষয়ে অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ছিদ্দিক উল্লাহ মিয়া সাংবাদিকদের বলেন, এবার ডিপিএড ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে প্রায় ৩৪ হাজার শিক্ষক প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। করোনা ভাইরাসের কারণে ওই প্রশিক্ষণ স্থগিত করে শিক্ষকদের হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। কিছুদিন পর গতবছর পহেলা জুলাই অনলাইন প্রশিক্ষণ ও পাঠদান শুরু হয়। গত ৩১ ডিসেম্বর ওই প্রশিক্ষন কোর্স সমাপ্ত ঘোষনা করা হয়। এ আইনজীবী জানান, অনলাইনে প্রশিক্ষণ কোর্স চালু রাখা হলেও দূর্বল নেটওর্য়াক বা কোন কোন স্থানে নেটওর্য়াক না থাকায় প্রত্যন্ত অঞ্চলের প্রশিক্ষণার্থী নিরবচ্ছিন্ন ক্লাস করতে সক্ষম হননি। তাছাড়া অনেক প্রশিক্ষণার্থীর ক্লাস করার মত ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস না থাকায় ও আইসিটিতে দক্ষ না হওয়ায় অনলাইন পাঠদান কার্যক্রমে অংশ নিতে সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছে। আইনজীবী আরো জানান, এই শিক্ষকরা যদি শারীরিকভাবে পরীক্ষায় অংশ নেন তবে বেশি ঝুকির মুখে পড়বে কোমলমতি শিশুরা। কারণ এই শিক্ষকরাই বিদ্যালয়ে উপস্থিত হয়ে শিশু শিক্ষার্থীদের ক্লাস নেবেন। একারণেই পরীক্ষা পিছিয়ে নতুন করে সময়সূচী ঘোষনা বা পরীক্ষা ছাড়াই ফল ঘোষনা চেয়ে নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা