kalerkantho

রবিবার । ১৫ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১৫ রজব ১৪৪২

‘খেতাব বাতিল করার ক্ষমতা শাজাহান খানদের নেই’

অনলাইন ডেস্ক   

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৭:০৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘খেতাব বাতিল করার ক্ষমতা শাজাহান খানদের নেই’

জিয়াউর রহমানের ‘বীর উত্তম’ খেতাব বাতিলের ক্ষমতা জাতীয় মুক্তিযুদ্ধ কাউন্সিলের শাজাহান খানদের নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল। রবিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক প্রতিবাদ বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি একথা বলেন।

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা এবং সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের 'বীর উত্তম' খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল ও মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্ম এই বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে। মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, খালেদা জিয়ার হাতে গড়া জাতীয় মুক্তি কাউন্সিল তারা (আওয়ামী লীগ) আজ জিয়াউর রহমানের খেতাব বাতিলের প্রস্তাবনা আনে। অং সান সুচির সম্মাননা খেতাব, কিন্তু জিয়াউর রহমানের এটা সম্মাননা খেতাব নয়, এটা বীরত্বের খেতাব। এ বীরত্বের খেতাবের প্রস্তাব দিয়েছিলেন জেনারেল ওসমানী। তদন্ত করে কাদের দেওয়া হবে সেই কমিটির প্রধান ছিলেন একে খন্দকার। এটাতে চূড়ান্ত স্বাক্ষর করেছিলেন তৎকালীন রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবুর রহমান। আর এটা গেজেটের মাধ্যমে প্রকাশ হয়েছিল।

আওয়ামী লীগের উদ্দেশ্যে আলাল বলেন, আলজাজিরা তাদের হৃদপিণ্ডে যে আঘাত করেছে সে আঘাত সারানোর জন্য তারা এ কাজটি করেছে। তারা কিছুই করতে পারবে না ইনশাআল্লাহ। 

জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের আহ্বায়ক ইশতিয়াক আজিজ উলফাতের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক সাদেক খানের সঞ্চালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ভাইস চেয়ারম্যান মেজর অব. হাফিজ উদ্দিন আহমদ বীর বিক্রম, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুল সালাম, স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানা, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন প্রমুখ বক্তব্য দেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা