kalerkantho

সোমবার । ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭। ১ মার্চ ২০২১। ১৬ রজব ১৪৪২

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়

ভাইস চ্যান্সেলর অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত ৩০ জনের মধ্যে ২৫ জনই ছাত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২০:০৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভাইস চ্যান্সেলর অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত ৩০ জনের মধ্যে ২৫ জনই ছাত্রী

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ মেধাবী ৩০ জন শিক্ষার্থীকে প্রথমবারের মতো দেওয়া হয়েছে ভাইস-চ্যান্সেলর অ্যাওয়ার্ড। অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্তদের মধ্যে স্নাতক (সম্মান) কোর্সে রয়েছেন ২৬ জন আর স্নাতক (পাস) কোর্সে ৪ জন। তবে স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত ৩০ শিক্ষার্থীর মধ্যে ২৫ জনই ছাত্রী।

গতকাল বুধবার শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে আওয়ার্ড প্রাপ্তদের সম্মাননা তুলে দেন।

অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত সাদিয়া রহমান সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজের সমাজকর্ম বিভাগের ২০১৩-২০১৪ শিক্ষাবর্ষের ছাত্রী। সম্মান শ্রেণিতে তিনি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ সিজিপিএ ৩.৮০ অর্জন করে ভাইস চ্যান্সেলর’স এওয়ার্ড অর্জন করেছেন। তার এসএসসি ও এইচএসসির ফলাফল যথাক্রমে ৩.৬৩ এবং ৪.৯০. তার বাবার নাম সাইদুর রহমান এবং মায়ের নাম লুৎফা বেগম। তিনি ভবিষ্যতে একজন আদর্শ শিক্ষক হতে ইচ্ছুক।

অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত আরেক শিক্ষার্থী  মাহামুদা আক্তার সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজের মার্কেটিং বিভাগের ২০১৩-২০১৪ শিক্ষাবর্ষের ছাত্রী। সম্মান শ্রেণিতে তিনি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ সিজিপিএ ৩.৭৩ অর্জন করে ভাইস চ্যান্সেলর’স এওয়ার্ড অর্জন করেছেন। তার এসএসসি ও এইচএসসির ফলাফল যথাক্রমে ৫.০০ এবং ৫.০০ তার বাবার নাম আমির হোসেন এবং মায়ের নাম লাকী আক্তার। তিনি বিবাহিত ও এক সন্তানের জনক। তিনি ভবিষ্যতে শিক্ষকতার মাধ্যমে দেশ ও জাতির সেবা করতে চান।

অনুষ্ঠানে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের  উপাচার্য প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী এমপি, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ, শিক্ষা সচিব মো. মাহবুব হোসেন, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রফেসর ড. সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক।

ভাইস-চ্যান্সেলর'স অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত (স্বর্ণপদক) স্নাতক (সম্মান) কোর্সের ২৬ শিক্ষার্থী হলেন- সাজেদুর রহমান (রাজশাহী কলেজ), জুঁই সেন (চট্টগ্রাম কলেজ), আবু তাকী (সরকারি আজিজুল হক কলেজ), শাহানাজ আক্তার (সরকারি তোলারাম কলেজ), মোছা. মাহফুজা খাতুন (সরকারি মাইকেল মধুসূদন কলেজ), তনয়া খানম (কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ), তন্ময় বৈদ্য (বরিশাল ব্রজমোহন সরকারি কলেজ), নাওসাবা বুলিয়া (লালমাটিয়া মহিলা কলেজ), প্রিসিলা পারভীন প্রভা (ঢাকা সিটি কলেজ), মোসা. হাবিবা খাতুন হাসি (রাজশাহী কলেজ), সাদিয়া রহমান (সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজ), উজ্জ্বল হোসেন (সরকারি আজিজুল হক কলেজ), তহমিনা আফরোজ বন্ধন (তেজগাঁও কলেজ), মৌসুমী খাতুন (রাজশাহী কলেজ), মাহামুদা আক্তার (সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজ), হাসনাত জাহান ইভা (মাদারীপুর সরকারি কলেজ), সম্পা রানী (দিনাজপুর সরকারি কলেজ), মোছা. কুইনআরা (মাগুরা নাজির আহমেদ কলেজ), শোয়েব আহমেদ (বরিশাল সরকারি ব্রজমোহন কলেজ), মোসা. মৌসুমী আক্তার (লালমাটিয়া মহিলা কলেজ), তানিয়া নাসরিন (নওগাঁর চৌধুরী চাঁদ মোহাম্মদ মহিলা কলেজ), পূজা দত্ত (গোপালগঞ্জ সরকারি বঙ্গবন্ধু কলেজ), লিমা সিদ্দিক (কুমুদিনী সরকারি কলেজ), তাসনিম আক্তার (সাতক্ষীরা সরকারি মহিলা কলেজ), নাছরিন আক্তার (নোয়াখালী সরকারি কলেজ)।

আর স্নাতক (পাস) কোর্সের ৪ জন হলেন- জবাশ্রী তালুকদার (চট্টগ্রাম হাটহাজারী কলেজ), মোছা. রক্সিমা খাতুন (রাজশাহীর ভবানীগঞ্জ মহিলা ডিগ্রি কলেজ), সীমা আক্তার (কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর আদর্শ মহিলা কলেজ), নাবিলা (শরীয়তপুরের এম. এ রেজা কলেজ)।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা