kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৯ ফাল্গুন ১৪২৭। ৪ মার্চ ২০২১। ১৯ রজব ১৪৪২

স্ত্রী অপহরণের অভিযোগ, প্রথম স্বামীর মামলায় দ্বিতীয় স্বামীর হাইকোর্টে জামিন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৭:৪৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



স্ত্রী অপহরণের অভিযোগ, প্রথম স্বামীর মামলায় দ্বিতীয় স্বামীর হাইকোর্টে জামিন

ফাইল ফটো

বরগুনার পাথরঘাটার ফাতেমা বেগম ৫ বছরের সংসার ফেলে পালিয়ে বিয়ে করেন প্রথম স্বামীর ভগ্নিপতি শাহ আলমকে। এ অবস্থায় দ্বিতীয় স্বামী শাহ আলমের বিরুদ্ধে স্ত্রী অপহরণের অভিযোগে মামলা করেন প্রথম স্বামী জাকির হোসেন। এ মামলায় শাহ আলমের ২০ বছর কারাদণ্ড দেয় বরগুনার আদালত। তবে হাইকোর্ট ওই শাহ আলমকে এ মামলায় জামিন দিয়েছেন।

বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ বৃহস্পতিবার শাহ আলমের জামিন মঞ্জুর করেন। নিম্ন আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে শাহ আলমের করা আপিল গ্রহণ করে তাকে জামিনের আদেশ দেন। শাহ আলমের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ শিশির মনির। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সারওয়ার হোসেন বাপ্পী।

হাইকোর্ট শাহ আলমকে জামিন দিলেও এ মুহুর্তে মুক্তি পাচ্ছে না। কারণ তার বিরুদ্ধে প্রথম স্ত্রীর (জাকিরের বোন) করা পৃথক এক মামলায় এরইমধ্যে ৩ বছরের সাজা হয়েছে। এ মামলায় তাকে নিম্ন আদালত থেকে জামিন নিতে হবে বলে জানিয়েছেন আইনজীবী।

মো. জাকির হোসেনের সঙ্গে ফাতেমা বেগমের বিয়ে হয় ২০০৭ সালে। কয়েক বছর পর ফাতেমা পালিয়ে যান। এরপর বিয়ে করেন জাকিরের ভগ্নিপতি শাহ আলমকে। এ অবস্থায় স্ত্রী ফাতেমা বেগমকে অপহরণের অভিযোগে ২০১২ সালের ৫ মে পাথরঘাটা থানায় শাহ আলমসহ আটজনকে আসামি করে মামলা করেন মো. জাকির হোসেন। এ অবস্থায় জাকির হোসেনকে তালাক দেন ফাতেমা বেগম। পুলিশ তদন্ত শেষে সকল আসামির বিরুদ্ধে ওই বছরের ৩০ আগস্ট অভিযোগপত্র দেয়। কিন্তু পাতেমা বেগম ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে জানান যে, তাকে শাহ আলম অপহরণ করেনি। স্বেচ্ছায় শাহ আলমকে বিয়ে করেছেন। আর জাকির হোসেনকে তালাক দিয়েছেন। কিন্তু এ মামলায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে বিচারকালেও ফাতেমা বেগম একই কথা বলেন। কিন্তু আদালত বিচার শেষে গতবছর ১৪ ডিসেম্বর শাহ আলমকে ২০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও একলাখ টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরো একবছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এছাড়া বাকি ৭ আসামির প্রত্যেককে ১৪ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরো ৩ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এ রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করেন শাহ আলম।

জানা যায়, ফাতেমা বেগমকে বিয়ে করায় শাহ আলমের বিরুদ্ধে যৌতুকের অভিযোগে প্রথম স্ত্রী (জাকির হোসেনের বোন) মামলা করেন। এ মামলায় শাহ আলমের তিনবছরের কারাদণ্ড হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা