kalerkantho

রবিবার। ৫ বৈশাখ ১৪২৮। ১৮ এপ্রিল ২০২১। ৫ রমজান ১৪৪২

নাসির গ্রুপের চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে তদন্ত শেষ করতে হাইকোর্টের নির্দেশ

নিম্ন আদালতে হাজিরা থেকে নাসিরউদ্দিন বিশ্বাসসহ সংশ্লিষ্টদের অব্যাহতি

চার বছরেও তদন্ত সম্পন্ন না হওয়ায় হাইকোর্টের উদ্বেগ প্রকাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩১ জানুয়ারি, ২০২১ ২১:৩০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নিম্ন আদালতে হাজিরা থেকে নাসিরউদ্দিন বিশ্বাসসহ সংশ্লিষ্টদের অব্যাহতি

নাসির গ্রুপের চেয়ারম্যান নাসিরউদ্দিন বিশ্বাসসহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে অর্থ পাচারের অভিযোগের মামলার তদন্ত চার মাসের মধ্যে সম্পন্ন করতে বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টিলিজেন্স ইউনিটকে (বিএফআইইউ) নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এ সময় পর্যন্ত নাসিরউদ্দিন বিশ্বাসসহ সংশ্লিষ্টদের ঢাকার সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে হাজির হওয়া থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এছাড়া উচ্চ আদালতের আদেশের পরও বিএফআইইউ কেন এতদিনে তদন্ত সম্পন্ন করতে পারেনি তা ৪০ দিনের মধ্যে তদন্ত করতে অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব ও বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্ণরকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ রবিবার এ আদেশ দেন। অর্থপাচারের অভিযোগের মামলা বাতিল চেয়ে নাসিরউদ্দিন বিশ্বাসসহ সংশ্লিষ্টদের করা আবেদনের ওপর শুনানি শেষে এ আদেশ দেন আদালত। আদালতে নাসিরউদ্দিন বিশ্বাসের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন মাহবুবুর রহমান কিশোর। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সারওয়ার হোসেন বাপ্পী। বিএফআইউর পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার তানভীর পারভেজ।

এদিকে চার বছরেও তদন্ত সম্পন্ন না করায় হাইকোর্ট উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। আদালত বলেছেন, এতদিনেও কোনো অগ্রগতি নেই। শুধু চিঠি চালাচালি। উচ্চ আদালতের আদেশ প্রতিপালন না করার এই দায় কার? তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।

বিদেশে ৫৬ কোটি ৩১ লাখ ৯ হাজার ৮২ টাকা অর্থ পাচারের অভিযোগ ২০১৫ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি গুলশান থানায় নাসির গ্রুপের চেয়ারম্যান নাসিরউদ্দিন বিশ্বাস, মো. আলফাজ উদ্দিনসহ (জিএম, আমদানি) দশজনের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক। তদন্ত শেষে সকল আসামিকে অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিয়ে ২০১৬ সালের ১৩ মার্চ আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করে দুর্নীতি দমন কমিশন(দুদক)। কিন্তু আদালত দুদকের প্রতিবেদন গ্রহণ না করে মামলাটি অধিকতর তদন্তের নির্দেশ দেন। বিশেষ জজ আদালতের এই আদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আবেদন করেন নাসির গ্রুপের চেয়ারম্যান। পরে হাইকোর্ট মামলাটি তদন্তের জন্য বিএফআইইউকে নির্দেশ দেন। কিন্তু চার বছরেও তদন্ত সম্পন্ন হয়নি। এ অবস্থায় গতবছর নভেম্বরে মামলা বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন নাসিরউদ্দিনসহ মামলার আসামিরা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা