kalerkantho

রবিবার। ৫ বৈশাখ ১৪২৮। ১৮ এপ্রিল ২০২১। ৫ রমজান ১৪৪২

'মত প্রকাশের স্বাধীনতা নিশ্চিতে মিজানুর রহমানের ভূমিকা ছিল প্রশংসনীয়'

অনলাইন ডেস্ক   

১২ জানুয়ারি, ২০২১ ০৯:০২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'মত প্রকাশের স্বাধীনতা নিশ্চিতে মিজানুর রহমানের ভূমিকা ছিল প্রশংসনীয়'

সাংবাদিক মিজানুর রহমান খান ও মির্জা ফখরুল ইসলাম। ফাইল ছবি

দেশের স্বনামধন্য সাংবাদিক ও দৈনিক প্রথম আলোর যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান খানের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সোমবার (১১ জানুয়ারি) রাতে এক শোকবার্তায় বিএনপি মহাসচিব বলেন, মরহুম মিজানুর রহমান খান ছিলেন অসাধারণ মেধাবী, স্পষ্টবাদী ও সত্যসন্ধানী সাংবাদিক। করোনায় আক্রান্ত হয়ে মাত্র ৫৩ বছর বয়সে তাঁর মৃত্যুতে তাঁর শোকাহত পরিবার-পরিজনের প্রতি গভীর সহমর্মিতা জ্ঞাপন করছি।

তিনি বলেন, মত প্রকাশের স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে মরহুম মিজানুর রহমান খানের ভূমিকা ছিল প্রশংসনীয়। স্বাধীন সাংবাদিকতার মহান ব্রতকে সামনে রেখে তিনি নিরলস কাজ করেছেন, সেটি তাঁর সতীর্থ সাংবাদিকরা চিরদিন শ্রদ্ধার সঙ্গে মনে রাখবেন বলে আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি।

শোকবার্তায় তিনি মরহুম মিজানুর রহমান খানের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকাহত পরিবারবর্গ, আত্মীয়-স্বজন, গুণগ্রাহী ও শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

প্রসংগত মিজানুর রহমান খান সোমবার (১১ জানুয়ারি) সন্ধ্যা ৬টা ২০ মিনিটে রাজধানীর ইউনিভার্সেল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

মিজানুর রহমান খানের করোনার নমুনা পরীক্ষায় ২ ডিসেম্বর পজিটিভ রিপোর্ট আসে। ৫ ডিসেম্বর তিনি গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালে ভর্তি হন। তাঁর শারীরিক সমস্যা বাড়লে সেখান থেকে ১০ ডিসেম্বর তাঁকে মহাখালীর ইউনিভার্সেল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তাঁকে নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে রেখে চিকিৎসা করা হয়। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে গত শনিবার বিকেলে তাঁকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হলে সোমবার সন্ধ্যা ছয়টা পাঁচ মিনিটে তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন দায়িত্বরত চিকিৎসক।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা