kalerkantho

সোমবার । ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭। ১ মার্চ ২০২১। ১৬ রজব ১৪৪২

তরঙ্গ জটিলতা কাটছে রবির

কাজী হাফিজ   

১৯ ডিসেম্বর, ২০২০ ০২:২৯ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



তরঙ্গ জটিলতা কাটছে রবির

মোবাইল ফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেডের এয়ারটেলের কাছ থেকে পাওয়া ১১.৬ মেগাহার্জ তরঙ্গের মেয়াদ শেষ হচ্ছে আজ ১৯ ডিসেম্বর। রবি নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসিকে জানিয়েছে, এই তরঙ্গ তাদের ১২ হাজার বিটিএসে ব্যবহার হচ্ছে। এটির ব্যবহার অব্যাহত না থাকলে তাদের গ্রাহকদের সেবা দিতে গুরুতর সমস্যা হবে। সমস্যায় পড়তে পারে তাদের প্রায় সাড়ে চার কোটি গ্রাহক। এ কারণে তারা আরো ১০ বছর ওই তরঙ্গ ব্যবহার করতে চায়। বিটিআরসিও ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সম্মতিতে এ সমস্যার সমাধানে আগ্রহী। সম্মত ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগও।

এ অবস্থায় রবিকে সপ্তাহখানেক আগে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, এই তরঙ্গ নবায়নে সরকারকে দিতে হবে ২৩৯.৭৭২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় দুই হাজার ৩১ কোটি টাকা। পাঁচ বছরে ছয় কিস্তিতে এই টাকা পরিশোধের সুযোগ দেওয়া হচ্ছে রবিকে। প্রথম কিস্তিতে নবায়নের প্রথম দিনই পরিশোধ করতে হবে ২৫ শতাংশ হিসেবে ৬০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৫০৮ কোটি টাকা। বাকি ৭৫ শতাংশ পরিশোধ করতে হবে পাঁচ কিস্তিতে পাঁচ বছরে। একই সঙ্গে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডেরও দাবি রয়েছে পরিশোধিত মূল্যের ওপর ১৫ শতাংশ মূসক।

বিটিআরসির সংশ্লিষ্ট একজন কর্মকর্তা গতকাল শুক্রবার কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘রবি তরঙ্গ নবায়নের জন্য তরঙ্গ মূল্যের প্রথম কিস্তি পরিশোধের প্রক্রিয়ার মধ্যে রয়েছে। ১৯ ডিসেম্বর সরকারি ছুটির দিন হওয়ায় আশা করা হচ্ছে ২০ ডিসেম্বর তারা এ মূল্য পরিশোধ করবে। এতে ব্যর্থ হলে আইনগত জটিলতা দেখা দিতে পারে।’

বিটিআরসির ওই কর্মকর্তা আরো জানান, রবি গত ৩ আগস্ট এই তরঙ্গের মেয়াদ নবায়ন করতে আবেদন করে। এরপর ১২ আগস্ট বিটিআরসির সভায় এ বিষয়ে মতামত জানাতে সংস্থাটির বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে স্পেকট্রাম বিভাগের মহাপরিচালককে আহ্বায়ক করে ১০ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে দেওয়া হয়। কমিটি এ বিষয়ে মতামত নিতে মোবাইল অপারেটর গ্রমীণফোন ও বাংলালিংকের সঙ্গে বৈঠক করে।

গ্রামীণফোন জানায়, তরঙ্গ নবায়ন পদ্ধতিতে অবশ্যই স্বচ্ছতার নিশ্চয়তা থাকতে হবে, সব অপারেটরকে এ বিষয়ে সুযোগ দিতে হবে। বিটিআরসিকে নবায়নের শর্ত ও মূল্য ঘোষণা করতে হবে এবং সব অপারেটরকে সেই শর্তাবলি অনুসারে নির্ধারিত মূল্যে তরঙ্গ নেওয়ার আগ্রহ দেখাতে বলতে হবে। রবির ক্ষেত্রে এটি নবায়ন এবং অতিরিক্ত তরঙ্গ হিসেবে গণ্য হবে। আর অন্যান্য অপারেটরের ক্ষেত্রে এটি হবে অতিরিক্ত তরঙ্গ। তরঙ্গের পরিমাণের চেয়ে চাহিদা যদি বেশি হয়, তাহলে নিলামের আয়োজন করতে হবে।

বাংলালিংক জানায়, টেলিযোগাযোগ খাতে সুষ্ঠু প্রতিযোগিতা বজায় রাখতে সরকারের উচিত সর্বশেষ নিলামের নির্ধারিত মূল্যে তরঙ্গ বিক্রি করা। নিয়ন্ত্রক সংস্থা যদি এখন স্বল্পমূল্যে তরঙ্গ বিক্রি করে, তাহলে বাংলালিংক আগের নিলামে যে অর্থ ব্যয় করেছে, তা থেকে একটি অংশ ফেরত চাইবে।

সর্বশেষ গত ২ ডিসেম্বর বিটিআরসি ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগকে রবির তরঙ্গ নিয়ে জটিলতার বিষয়টি তুলে ধরে জানায়, ১৯ ডিসেম্বরের মধ্যে রবিকে তাদের ১৬.৬ মেগাহার্জ তরঙ্গ নবায়ন করতে হবে। না হলে তাদের ১২ হাজার বিটিএসে ব্যবহৃত এই তরঙ্গের আইনগত ভিত্তি থাকবে না। এ ছাড়া জানানো হয়, ১৯ ডিসেম্বরের মধ্যে তরঙ্গ নবায়ন না হলে গ্রাহকস্বার্থ রক্ষায় রবির নেটওয়ার্ক সচল রাখতে অন্তর্বর্তী সময়ের জন্য শর্ত সাপেক্ষে তাদেরকে ওই তরঙ্গ ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া যেতে পারে। এর জবাবে গত ৮ ডিসেম্বর ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ থেকে উপসচিব মাসুমা নাসরিন স্বাক্ষরিত একটি চিঠি বিটিআরসি চেয়ারম্যানকে পাঠানো হয়। এতে কিস্তিতে পরিশোধযোগ্য ১০ বছরের জন্য তরঙ্গ মূল্য এবং জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের প্রাপ্য মূসকের বিষয়টি উল্লেখ করা হয়।

বিষয়টি সম্পর্কে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘রবিকে তাদের তরঙ্গ নবায়নের জন্য অনুমতি আমরা দিয়ে দিয়েছি। আশা করছি, নির্ধারিত মূল্য পরিশোধ করে রবি তাদের তরঙ্গ নবায়ন করে নেবে। বৃহস্পতিবারে এটা না হলে রবিবারেও এটা করে নিতে পারে।’

মন্ত্রী আরো বলেন, ‘গ্রামীণফোনও তরঙ্গের জন্য আবেদন করেছে। রবিকে যে মূল্যে তরঙ্গ দেওয়া হচ্ছে সে মূল্যে চাইলে অন্য অপারেটররাও নিতে পারবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা