kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

দলিল বুনিয়াদে নামজারি ব্যবস্থা চালু শিগগিরই

জমির নামজারিতে প্রয়োজন হবেনা ভূমি অফিসে আবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ ডিসেম্বর, ২০২০ ১৮:১৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জমির নামজারিতে প্রয়োজন হবেনা ভূমি অফিসে আবেদন

দলিল বুনিয়াদে নামজারি ব্যবস্থা শিগগিরই চালু হতে যাচ্ছে। এ ব্যবস্থায় ক্রয়কৃত কিংবা হস্তান্তরিত ভূমির নামজারি করার জন্য এসিল্যান্ড অফিসে নামজারি আবেদনের আর প্রয়োজন হবেনা। প্রাথমিকভাবে সাভার উপজেলায় এ ব্যবস্থা চালু করার নির্দেশনা দেওয়া হয়।

ভূমি ক্রয়-বিক্রয় কিংবা হস্তান্তরের পর ভূমির নিবন্ধন (রেজিস্ট্রেশন) ও নামজারির (মিউটেশন) সমন্বয় সাধনের লক্ষ্যে গত ৯ নভেম্বর অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভা বৈঠকে ভূমি মন্ত্রণালয় কর্তৃক উপস্থাপিত প্রস্তাবটি আরও কিছু নির্দেশনাসহ মন্ত্রিসভায় অনুমোদন প্রদান করা হয়।

সোমবার ভূমি মন্ত্রণালয় এ সম্পর্কে মাঠ পর্যায়ের ভূমি অফিসের করণীয় বিষয়ক এক দিকনির্দেশনামূলক পরিপত্রে জারি করেছে।

পরিপত্রে বলা আছে, ই-নামজারির আবেদনের মতো প্রাপ্ত দলিলের কপি এবং এলটি নোটিশ একত্রিত করে সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্তৃক স্বয়ংক্রিয়ভাবে ই-নামজারির জন্য মিস কেস রুজু করতে হবে। এ ক্ষেত্রে দলিল গ্রহীতার থেকে আলাদা করে আবেদন গ্রহণের আবশ্যকতা নেই।

এতে আরও বলা আছে, নামজারি/ই-নামজারি খতিয়ানের ভিত্তিতে জমির দলিল রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হলে এবং এর ভিত্তিতে মালিকানা পরিবর্তন হলে সেক্ষেত্রে উপযুক্ত বিধান প্রযোজ্য হবে। এ ক্ষেত্রে বর্তমানে সাধারণভাবে প্রচলিত পদ্ধতি অনুসরণ করার প্রয়োজন হবে না। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন/পৌর ভূমি অফিস, সার্ভেয়ার/কানুনগো কর্তৃক সরেজমিন তদন্তের আবশ্যকতা নেই মর্মে নির্দেশনাও আছে পরিপত্রে।

পরিপত্রে বলা আছে, জমি হস্তান্তর দলিল রেজিস্ট্রেশন করার সময় সাব-রেজিস্ট্রার তিন কপি দলিল সম্পাদন করবেন। তম্মধ্যে একটি কপি দলিল গ্রহীতা পাবেন, দ্বিতীয় কপি সাব-রেজিস্ট্রি অফিস সংরক্ষণ করবে এবং তৃতীয় কপি ও এলটি নোটিশের একটি পরিচ্ছন্ন ও পাঠযোগ্য কপি সাব-রেজিস্ট্রার সংশ্লিষ্ট উপজেলা/সার্কেল ভূমি অফিসে প্রেরণ করবেন।

দলিলের কপি ও এলটি নোটিশের কপি ভূমি অফিসে পৌঁছাবার পর প্রচলিত বিধান অনুযায়ী নামজারির ফি ও সার্ভিস চার্জ পরিশোধ করা এবং দলিল অবিকল নকল কপিসহ উপস্থিত হয়ে শুনানি গ্রহণের লক্ষ্যে সর্বোচ্চ চার কার্যদিবসের মধ্যে সময় দিয়ে দলিল গ্রহীতাকে ই-মেইল/মেসেজ দিতে হবে। এছাড়া, দলিলের কপি এবং এলটি নোটিশ সহকারী কমিশনার (ভূমি)-এর নিকট পৌঁছানোর তারিখ হতে পরবর্তী আট কার্যদিবসের মধ্যে নামজারি সম্পন্ন নিশ্চিত করার কথা বলা আছে পরিপত্রে।

ডিজিটাল সিস্টেমের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ ও সনদ যাচাইয়ে সহায়তার জন্য পত্র প্রেরণ ভূমি মন্ত্রণালয়ের চলমান ডিজিটাল/ইলেক্ট্রনিক সেবাসমূহের মধ্যে ই-নামজারি সিস্টেমের সঙ্গে এটুআই কর্তৃক পরিচালিত উত্তরাধিকার সনদ (যা চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনে চলমান) সিস্টেম দেশের সকল স্থানীয় সরকার কর্তৃপক্ষ কর্তৃক ব্যবহারের লক্ষ্যে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ে ভূমি মন্ত্রণালয় কর্তৃক আজ একটি পত্র প্রেরণ করা হয়।

ভূমি মন্ত্রণালয়ের চলমান ডিজিটাল/ইলেক্ট্রনিক সেবাসমূহের হ্যাকিং প্রতিরোধে ডিজিটাল সাইবার নিরাপত্তা রক্ষার কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ করে জননিরাপত্তা বিভাগ ও তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগে ভূমি মন্ত্রণালয় কর্তৃক আরেকটি পত্র প্রেরণ করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা