kalerkantho

মঙ্গলবার। ৫ মাঘ ১৪২৭। ১৯ জানুয়ারি ২০২১। ৫ জমাদিউস সানি ১৪৪২

'ভাস্কর্য ইস্যু জাতিকে সংঘাতের দিকে ঠেলে দেবার অপচেষ্টা'

অনলাইন ডেস্ক   

৫ ডিসেম্বর, ২০২০ ১৭:১২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'ভাস্কর্য ইস্যু জাতিকে সংঘাতের দিকে ঠেলে দেবার অপচেষ্টা'

'জ্ঞান-বিজ্ঞান শিল্প সাহিত্য বাঙালির নৃতাত্ত্বিক বৈশিষ্ট্যেই বিদ্যমান। পৃথিবীর পঞ্চম বৃহত্তম জনগোষ্ঠী হিসেবে বাঙালি সামাজিক সাংস্কৃতিক বৈশিষ্ট্য নিয়েই ক্রমাগত বিকশিত হচ্ছে এবং ভবিষ্যতেও টিকে থাকবে। বাঙালি জাতীয়তাবাদের উত্থান, বিকাশ ও ১৯৭১ সালের সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাঙালি জীবনে পুনর্জাগরণের ধারায় সংশ্লিষ্ট সকল মৌলিক প্রশ্নের নিষ্পত্তি হয়েছে।'

আজ শনিবার ভাস্কর্য ইস্যুর প্রতিক্রিয়া জানিয়ে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল সভাপতি আ স ম আবদুর রব ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ছানোয়ার হোসেন তালুকদার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে মন্তব্য করেন।

আ স ম রব বলেন, বাঙালি জাতি ক্রমশ অগ্রসর হচ্ছে 'তৃতীয় জাগরণে'র পথে। এই জাগরণ বাঙালি জীবনে নবতর সামাজিক উপাদান সমৃদ্ধ একটি সুন্দর দীর্ঘস্থায়ী কল্যাণময় সমাজ প্রতিষ্ঠা করবে, অন্যান্য জাতিসত্তার পাশাপাশি বাঙালি জাতিসত্তার উচ্চতর বিকাশ নিশ্চিত করবে।

বিবৃতিতে বলা হয়, মীমাংসিত বিষয় সমূহ নিয়ে অপ্রয়োজনীয় ইস্যু সৃষ্টি করা জাতির মেধা, মনন ও সময়ের অপচয় ছাড়া আর কিছু নয়। ভাস্কর্য ইস্যু জাতিকে বিভেদ, অনৈক্য ও সংঘাতের দিকে ঠেলে দেবার অপচেষ্টা। 

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, বাক স্বাধীনতা, সংবাদপত্রের স্বাধীনতা, মৌলিক মানবাধিকার এবং ভোটাধিকারকে অপহরণ করার ফলে সমাজে রাজনীতির প্রবাহমানতা অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে। গণতন্ত্রের অনুপুস্থিতিতে রাজনৈতিক শুন্যতায় সমাজে ভয়ঙ্কর রাজনৈতিক সংস্কৃতির উদ্ভব ঘটছে। এ অবস্থা দীর্ঘদিন চলতে থাকলে রাষ্ট্র ও সমাজ অকার্যকর হবার দিকে ধাবিত হবে।

সুতরাং বিদ্যমান ব্যবস্থা থেকে উত্তরণ এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনাভিত্তিক রাষ্ট্রব্যবস্থা বিনির্মাণে আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধ ভূমিকা গ্রহণ করতে হবে বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা