kalerkantho

রবিবার । ১০ মাঘ ১৪২৭। ২৪ জানুয়ারি ২০২১। ১০ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সোহরাওয়ার্দীর সমাধীতে মৎস্যজীবী লীগের শ্রদ্ধা

নিজস্ব প্রতিবেদক    

৫ ডিসেম্বর, ২০২০ ১৩:১৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সোহরাওয়ার্দীর সমাধীতে মৎস্যজীবী লীগের শ্রদ্ধা

গণতন্ত্রের মানসপুত্র, উপমহাদেশের প্রখ্যাত রাজনীতিবিদ হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর ৫৭তম মৃত্যুবার্ষিকীতে তাঁর সমাধীতে শ্রদ্ধা জানিয়েছে আওয়ামী লীগের অন্যতম সহযোগী সংগঠন, বাংলাদেশ আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগ।

আজ শনিবার (৫ ডিসেম্বর) সকালে রাজধানীর হাইকোর্টসংলগ্ন সমাধীতে সংগঠনের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা সায়িদুর রহমান সাইদ, কার্যকরী সভাপতি সাইফুল আলম মানিক, সাধারণ সম্পাদক লায়ন শেখ আজগর নস্করের নেতৃত্বে শ্রদ্ধা জানানো হয়।

এসময় মৎস্যজীবী লীগের সাধারণ সম্পাদক লায়ন শেখ আজগর নস্কর বলেন, 'পৃথিবীতে বাংলাদেশ একটি অন্যতম অসাম্প্রদায়িক দেশ। এদেশে ধর্মের নামে গোঁড়ামি চলতে পারে না। যেখানে বিশ্বের মুসলিম দেশগুলোতে ভাস্কর্য রয়েছে, সেখানে বাংলাদেশে জাতির পিতার ভাস্কর্য থাকাটা স্বাভাবিক। ভাস্কর্য আর মূর্তি এক জিনিস নয়। এটা নিয়ে রাজনীতি করার সুযোগ নেই।'

হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী প্রসঙ্গে আজগর নস্কর বলেন, তিনি গণতন্ত্রের জন্যই বার বার লড়াই করেছেন। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের পর বাঙালির যে চেতনার উন্মেষ ঘটেছিল, সেটির নেতৃত্ব দিয়েছিলেন হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী। তাঁর রাজনৈতিক দূরদর্শিতার ফল ১৯৫৪ সালের যুক্তফ্রন্টের অবিস্মরণীয় বিজয়। গণতান্ত্রিক রীতি ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল ছিলেন, তাই সুধী সমাজে তিনি 'গণতন্ত্রের মানসপুত্র' বলে আখ্যায়িত হন।

আজগর নস্কর আরো বলেন, শহীদ সোহরাওয়ার্দী পাকিস্তানের সামরিক স্বৈরশাসনের বিরুদ্ধে এ দেশের শান্তিপ্রিয় গণতন্ত্রকামী মানুষের আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। ১৯৪৭ সালে পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার পর থেকে তিনি মুসলিম লীগ সরকারের একনায়কতন্ত্রের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী ভূমিকা পালন করেন। তাঁর প্রচেষ্টায় ১৯৬৫ সালে পাকিস্তানের প্রথম সংবিধান প্রণীত হয়।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের সহ- সভাপতি আবুল বাশার, আব্দুল গফুর চোকদার, মুহাম্মদ আলম, মোহাম্মদ ইউনুস, মো.  আনোয়ারুল হক, মমতাজ খানম, সাজ্জাদুল হক লিকু সিকদার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম খা, ফিরোজ আহম্মেদ তালুকদার, প্রচার সম্পাদক কাজী শফিউল আলম শফিক, দপ্তর সম্পাদক এম.এইচ এনামুল হক রাজু, সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন সিদ্দিকীসহ কেন্দ্রীয় ও ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণের নেতৃবৃন্দ। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা