kalerkantho

রবিবার। ৩ মাঘ ১৪২৭। ১৭ জানুয়ারি ২০২১। ৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সার্ক অর্থোপেডিক এসোসিয়েশনের সভাপতি হলেন আমজাদ হোসেন

অনলাইন ডেস্ক   

৪ ডিসেম্বর, ২০২০ ০১:০৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সার্ক অর্থোপেডিক এসোসিয়েশনের সভাপতি হলেন আমজাদ হোসেন

সম্প্রতি ইন্টারন্যাশনাল সোসাইটি অব অর্থোপেডিক সার্জারি এন্ড ট্রমালোজির (সিকোট) সহসভাপতি নিযুক্ত হওয়ার পর এবার ‘অর্থোপেডিক এসোসিয়েশন অব সার্ক কান্ট্রিজ’ (OASAC) এর সভাপতি হলেন বাংলাদেশের বিশিষ্ট অর্থোপেডিক সার্জন, বাংলাদেশ অর্থোপেডিক সোসাইটির সাবেক সভাপতি ও ল্যাবএইড হাসপাতালের অর্থোপেডিক ও আর্থোপ্লাস্টি সেন্টারের চিফ কনসালট্যান্ট ও বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. এম আমজাদ হোসেন। 

জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতিতে সম্প্রতি এক ভার্চুয়াল ওয়েবিনার মিটিংয়ের মাধ্যমে এশিয়ার ৮টি দেশের (সার্কের) অর্থোপেডিক সার্জনগণ আগামী ২০২১-২২ সালের নির্বাহী কমিটিতে তাঁকে এই সংস্থাটির সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত করেন।

এশিয়ার ৮টি দেশের স্বনামধন্য অর্থোপেডিক সার্জনগণসহ এই ভার্চুয়াল মিটিংয়ে বাংলাদেশ থেকে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানের (নিটোর) সাবেক পরিচালক অধ্যাপক ডা. খন্দকার আব্দুল আওয়াল রিজভী, বর্তমান পরিচালক অধ্যাপক ডা. মো. আব্দুল গনি মোল্লাহ, বাংলাদেশ অর্থোপেডিক এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. ওয়াহিদুর রহমান, অধ্যাপক ডা. মো. মোনায়েম হোসেন, নিটোরের অধ্যাপক ডা. মো. জাহাঙ্গীর আলম ও ডা. ফজলুল হক কাসেম।

উল্লেখ্য, অর্থোপেডিক সার্জন অধ্যাপক ডা. এম আমজাদ হোসেন একজন যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা। স্বাধীনতাযুদ্ধের সময় ঊরুতে গুলিবিদ্ধ হলে ভারতের সামরিক হাসপাতালে দীর্ঘদিন চিকিত্সাধীন ছিলেন। পরবর্তীকালে বঙ্গবন্ধুর আমন্ত্রণে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিত্সা দিতে দেশে আসা আন্তর্জাতিক বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জন ডা. আর জে গাস্টের অধীনে অর্থোপেডিক চিকিত্সা শুরু করেন। তাঁর নেতৃত্বে দেশে কোমর ও হাঁটু প্রতিস্থাপন (হিপ অ্যান্ড নি রিপ্লেসমেন্ট) সার্জারিতে এসেছে বৈপ্লবিক সাফল্য। আন্তর্জাতিক মান বজায় রেখে এ পর্যন্ত সাড়ে তিন হাজারেরও বেশি এ ধরনের সার্জারি সম্পন্ন করেছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা