kalerkantho

রবিবার । ১০ মাঘ ১৪২৭। ২৪ জানুয়ারি ২০২১। ১০ জমাদিউস সানি ১৪৪২

ঢাবি শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলা

ছাত্র অধিকার পরিষদের তিন নেতা দুই দিনের রিমান্ডে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ ডিসেম্বর, ২০২০ ১২:৩৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ছাত্র অধিকার পরিষদের তিন নেতা দুই দিনের রিমান্ডে

ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় আভিযুক্তদের আদালতে নেয়া হচ্ছে। ছবি: কালের কণ্ঠ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর দায়ের করা ধর্ষণ ও ধর্ষণের সহযোগিতার মামলায় বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের তিন নেতাকে দুই দিন করে রিমান্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। আজ বৃহস্পতিবার (০৩ ডিসেম্বর) ঢাকা মহানগর হাকিম শহিদুল ইসলামের আদালত রিমান্ডের এই আদেশ দেন।

তারা হলেন, বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মো.সাইফুল ইসলাম,  নাজমুল হাসান সোহাগ ও সংগঠনটির ঢাবি শাখার সহ-সভাপতি মো. নাজমুল হুদা।

এর আগে কারাগার আটক তিন আসামিকে আদালতে হাজির করা হয়। এরপর লালবাগ থানার মামলায় তদন্তকারী কর্মকর্তা প্রত্যেকের পাঁচ দিন করে রিমান্ডে নেওয়ার জন্য আবেদন করেন। এসময় আসামির পক্ষের আইনজীবীরা রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন শুনানি করেন। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন আবেদন খারিজ করে প্রত্যেক আসামির দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে কোতোয়ালি থানায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সেই শিক্ষার্থীর করা মামলায় তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারপর থেকে আসামিরা কারাগারে রয়েছে। 

উল্লেখ্য, গত ২০ সেপ্টেম্বর রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) এক শিক্ষার্থী লালবাগ থানায় এ মামলাটি করেন। মামলায় মোট ৬ জনকে আসামি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ধর্ষণে সহযোগিতাকারী হিসেবে এজহারে ৩ নম্বর আসামি হিসেবে নুরুল হক নুরের নাম উল্লেখ করা হয়েছে।

মামলার প্রধান আসামি করা হয়েছে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুনকে। ধর্ষণের স্থান হিসেবে লালবাগ থানার নবাবগঞ্জ বড় মসজিদ রোডে হাসান আল মামুনের বাসার কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

নুর ও মামুন ছাড়া মামলার অন্য আসামিরা হলেন, বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক নাজমুল হাসান সোহাগ, বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক মো. সাইফুল ইসলাম, ছাত্র অধিকার পরিষদের সহ-সভাপতি মো. নাজমুল হুদা এবং ঢাবি শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ হিল বাকি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা