kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ মাঘ ১৪২৭। ২৮ জানুয়ারি ২০২১। ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

মানুষ খাদ্য-চিকিৎসা সংকট নিয়ে ব্যস্ত, সরকার ভাস্কর্য নিয়ে : এবি পার্টি

অনলাইন ডেস্ক   

২৭ নভেম্বর, ২০২০ ২০:৩২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মানুষ খাদ্য-চিকিৎসা সংকট নিয়ে ব্যস্ত, সরকার ভাস্কর্য নিয়ে : এবি পার্টি

এই সরকার গণতন্ত্র ও সুশাসনকে নির্বাসনে পাঠিয়েছে। গণমানুষের চাওয়া পাওয়া নিয়ে তাই তাদের কোনো মাথা ব্যথা নাই। করোনার বিপদে মানুষ যখন খাদ্য ও চিকিৎসা সংকটে নিপতিত সরকার তখন কোটি কোটি টাকা খরচ করে ভাস্কর্য নির্মাণ নিয়ে মাতোয়ারা।

আজ শুক্রবার বিকেল ৪টায় ঢাকার বিজয়নগরস্থ দলীয় কার্যালয়ে এবি পার্টি (আমার বাংলাদেশ পার্টি) ঢাকা মহানগর দক্ষিণ কর্তৃক দলে যোগদানকৃতদের পরিচিতি সভা ও সম্মেলনে এ কথা বলেন এবি পার্টির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সমন্বয়ক ও কেন্দ্রীয় সহকারী সদস্য সচিব জনাব এএফএম উবাইদুল্লাহ মামুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এবি পার্টির আহ্বায়ক সাবেক জনপ্রশাসন সচিব এএফএম সোলায়মান চৌধুরী।

প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন সদস্য সচিব মজিবুর রহমান মন্জু। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এবি পার্টির যুগ্ম-আহ্বায়ক প্রফেসর ডা. মেজর (অব.) আব্দুল ওহাব মিনার, যুগ্ম-আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম, যুগ্ম-সদস্য সচিব ব্যারিস্টার আসাদুজ্জামান ফুয়াদ, যুগ্ম-সদস্য সচিব ব্যারিস্টার জোবায়ের আহমেদ ভূঁইয়া, যুগ্ম-সদস্য সচিব বিএম নাজমুল হক প্রমূখ।

এএফএম সোলায়মান চৌধুরী বলেন, যারা ক্ষমতায় তারা বার বার আমাদের অধিকার ভুলুণ্ঠিত করেছে। তাদের কাছে আবেদন নিবেদন করে অধিকার ফিরে পাওয়া যাবে না। আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে অধিকার আদায় করে নিতে হয়। জনগণ হল রাষ্ট্রের মালিক। রাষ্ট্রের মালিকদের কাছে ক্ষমতা ফিরিয়ে আনতে এবি পার্টির জন্ম হয়েছে।

প্রধান বক্তা মজিবুর রহমান মন্জু বলেন, এই সরকার সকল বিরোধী শক্তিকে দমন করেছে। কিন্তু ইতিহাসে যত যখনই দুর্যোগ এসেছে, স্রোতের বিপরীতে দাঁড়িয়ে একদল সাহসী মানুষ রুখে দাঁড়িয়েছে। বিএনপির কাছে মানুষের আশা ও প্রত্যাশা ছিল তারা বাংলাদেশকে ফ্যাসিবাদ মুক্ত করতে নেতৃত্ব দেবে। কিন্তু বিএনপি নেতৃত্ব জাতিকে হতাশ করেছে। তরুণরা আজ দুর্নীতির চক্রে ঘেরা পরিবারতান্ত্রিক রাজনীতি থেকে মুক্তি চায়। তারা দেশ মেরামতের নতুন রাজনীতির প্রত্যাশায় বুক বেঁধে আছে। নতুন প্রজন্মের জন্য এবি পার্টি সেবা ও সমস্যা সমাধানের নতুন রাজনীতির সূচনা করবে। 

সম্মেলনে নতুন যোগদানকৃতদের ফুল দিয়ে বরণ করা হয় এবং সবার সামাজিক ও রাজনৈতিক পরিচয় তুলে ধরা হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা