kalerkantho

শনিবার । ৯ মাঘ ১৪২৭। ২৩ জানুয়ারি ২০২১। ৯ জমাদিউস সানি ১৪৪২

যাবজ্জীবনের বাকি সাজা খাটা থেকে

২০ বছর জেলে থাকার পর ধর্ষকের অব্যাহতির আবেদন আপিল বিভাগে খারিজ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৬ নভেম্বর, ২০২০ ২১:০১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



২০ বছর জেলে থাকার পর ধর্ষকের অব্যাহতির আবেদন আপিল বিভাগে খারিজ

ধর্ষণ মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি হিসেবে ২০ বছর সাজা খাটার পর বাকী সাজা থেকে অব্যাহতি চেয়ে পটুয়াখালীর কলাপাড়া থানার আলম মুন্সীর করা আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত আপিল বিভাগ।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগ বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন। ফলে আসামি আলম মুন্সীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের অবশিষ্ট সাজা ভোগ করতে হবে বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে আইনজীবী ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিত দেবনাথ। আসামি পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট ড. বশির আহমেদ ও এওআর বিভাষ চন্দ্র বিশ্বাস।

একই এলাকার এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে ১৯৯৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর পটুয়াখালীর কলাপাড়া থানায় আলম মুন্সীর বিরুদ্ধে কলাপাড়া থানায় মামলা করেন ওই নারী। মামলায় ২০০০ সালের ১৬ আগস্ট পটুয়াখালীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আদালত-২ এক রায়ে আলম মুন্সীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন। এই রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করেন আলম মুন্সী। আসামির আপিল খারিজ করে হাইকোর্ট ২০০৪ সালের ১৭ আগস্ট রায় দেন। ফলে তার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড বহাল থাকে। পরে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে ২০০৫ সালে আপিল করেন আসামি।

এই আপিল বিচারাধীন থাকাবস্থায় সম্প্রতি আসামি আপিল বিভাগে পৃথক একটি আবেদন করেন। এ আবেদনে বলা হয়, আলম মুন্সী ২০০০ সালের ১৬ আগস্ট থেকে কারাগারে আছেন। এরইমধ্যে আসামি ২০ বছর তিন মাস সাজা ভোগ করে ফেলেছেন। এখন আসামির বয়স ৫৩ বছর। তার স্ত্রী, তিন সন্তান ও বৃদ্ধ মা রয়েছেন। এই পর্যায়ে মানবিক কারণে তাকে অবশিষ্ট সাজা ভোগ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হোক। আপিল বিভাগ তার এ আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন বলে জানান ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিত দেবনাথ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা