kalerkantho

শুক্রবার । ৮ মাঘ ১৪২৭। ২২ জানুয়ারি ২০২১। ৮ জমাদিউস সানি ১৪৪২

‘বন্য হাতি হত্যায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে’

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৫ নভেম্বর, ২০২০ ১৬:১৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘বন্য হাতি হত্যায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে’

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেছেন, বর্তমান সরকার পরিবেশ ও জীববৈচিত্র সংরক্ষণে নিরলসভাবে কাজ করছে।কিন্তু সম্প্রতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে, পার্বত্য চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার সহ দেশের কিছু এলাকায় বিভিন্ন কারণে বন্য হাতি নিহত হচ্ছে। এসকল বন্য হাতি নিধন প্রতিরোধে ব্যর্থ ও দায়ী কর্মকর্তা কর্মচারীদের বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি আরো বলেন, বন্য হাতি হত্যার সাথে জড়িত মানুষদের বিরুদ্ধেও আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ অব্যাহত থাকবে।

আজ বুধবার মন্ত্রণালয়ের ২০২০-২১ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি)-র বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনার জন্য ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে আয়োজিত মাসিক সভায় ঢাকাস্থ সরকারি বাসভবন হতে অনলাইনে যুক্ত হয়ে সভাপতির বক্তব্যে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

সভায় পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার, সচিব জিয়াউল হাসান এনডিসি, অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) ড. মো. বিল্লাল হোসেন, অতিরিক্ত সচিব (পরিবেশ) মাহমুদ হাসান, অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) আহমদ শামীম আল রাজ, পরিবেশ অধিদফতরের মহাপরিচালক ড. এ, কে, এম রফিক আহাম্মদ, বন অধিদফতরের প্রধান বন সংরক্ষক  মো. আমির হোসেন চৌধুরীসহ দফতর প্রধানগণ ও বিভিন্ন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালকরা আলোচনায় অংশ গ্রহণ করেন।

বনমন্ত্রী  জনসাধারণকে বন্য হাতি নিধন হতে বিরত করতে সচেতনামূলক কর্মসূচি জোরদারের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের প্রতি আহবান জানান। তিনি বলেন,  বন্য হাতির কারনে ক্ষতির সম্মুখীন মানুষদের সরকারের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ প্রদানের বিষয়টি সকলকে জানাতে হবে। মন্ত্রী বলেন, হাতি সহ অন্য সকল প্রকার বন্যপ্রাণির নিরাপত্তায় প্রয়োজনীয় সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

সভায় উপস্থিত প্রধান বন সংরক্ষক আমীর হোসাইন চৌধুরী জানান, রোহিঙ্গাদের আবাসস্থল তৈরি এবং বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের কারনে হাতির আবাসস্থল বিনষ্ট ও বিভক্ত হয়েছে। তাদের দীর্ঘকালীন পরিচিত চলাচলের পথও নষ্ট হয়েছে। ফলে বন্য হাতী পথভ্রষ্ট হয়ে অথাবা খাদ্যের সন্ধ্যানে মানুষের ধানক্ষেতে প্রাবেশের চেষ্টা করে। ফলে স্থানীয় মানুষের পাতানো বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে বা অন্যবিধ আক্রমনে নিহত হচ্ছে। তিনি বলেন, প্রতিটি ক্ষেত্রেই ময়না তদন্ত পূর্বক মামলা দায়ের করা হচ্ছে। বন্য হাতী হত্যা প্রতিরোধে সচেতনতা সৃষ্টির কর্মসূচি জোরদার করা হবে মর্মে তিনি সভাকে অবহিত করেন। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানিয়েছে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়।

সভায় পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের ২০২০-২১ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি(এডিপি) তে অন্তর্ভুক্ত প্রকল্পসমূহের  বাস্তবায়ন অগ্রগতি  বিস্তারিতভাবে পর্যালোচনা করা হয়। এবং প্রতিটি ক্ষেত্রেই সুনির্দিষ্ট দিকনির্দেশনা প্রদান করা হয়। সকল প্রকল্প যাতে যথানিয়মে এবং যথাসময়ে সম্পন্ন হয় সে বিষয়ে মনোযোগি হতে পরিবেশ মন্ত্রী সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান জানান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা