kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ মাঘ ১৪২৭। ২৮ জানুয়ারি ২০২১। ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

‘অবকাঠামো নির্মাণের পাশাপাশি রক্ষণাবেক্ষণ বেশি জরুরি’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ নভেম্বর, ২০২০ ২১:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘অবকাঠামো নির্মাণের পাশাপাশি রক্ষণাবেক্ষণ বেশি জরুরি’

দেশে উন্নয়ন অবকাঠামো নির্মাণের পাশাপাশি এগুলো যথাযথভাবে ভালো রাখতে রক্ষণাবেক্ষণ আরো বেশি প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। মঙ্গলবার সচিবালয় থেকে অনলাইনে নোয়াখালী পৌরসভার এমজিএসপি প্রকল্পের আওতায় বাংলাদেশ মিউনিসিপ্যাল ডেভেলপমেন্ট ফান্ড এবং নোয়াখালী পৌরসভার অর্থায়নে নবনির্মিত সোনারপুর পৌরসভা মার্কেট, পৌর কিচেন মার্কেট ও পৌর বাস টার্মিনালের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মন্ত্রী মন্তব্য করেন।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সারা দেশে রাস্তাঘাট, ব্রিজ, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এবং অন্যান্য অবকাঠামোসহ অনেক উন্নয়ন কর্মকাণ্ড পরিচালিত হচ্ছে। সরকার অনেক টাকা খরচ করে অবকাঠামোসমূহ নির্মাণ করছে। কিন্তু অনেক সময় এসব অবকাঠামো ও প্রতিষ্ঠানগুলো ঠিকভাবে রক্ষণাবেক্ষণ করা হয় না। এই কালচার অবশ্যই দূর করতে হবে। 

মো. তাজুল ইসলাম বলেন, পুরো দেশে উন্নয়ন করার জন্য প্রধানমন্ত্রী অঙ্গীকারবদ্ধ। তিনি একটি উন্নত বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখেছেন। সে স্বপ্ন পূরণের জন্য একটা পথ নকশা তৈরি করেছেন এবং কমপ্রেহেনসিভ প্রোগ্রাম নিয়ে সারা দেশের উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করছেন। তিনি বলেন, সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধিসহ সকল শ্রেণিপেশার মানুষ সম্মিলিতভাবে কাজ করছে বলেই দেশ আজকে স্বল্প আয়ের দেশ হতে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে স্থান করে নিয়েছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ২০৪১ সালের আগেই দেশ উন্নত সমৃদ্ধ দেশে পরিণত হবে বলে মন্তব্য করেন মন্ত্রী। 

বর্তমানে আমাদের মাথাপিছু আয় দুই হাজার ডলারের বেশি উল্লেখ করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, উন্নত দেশে রূপান্তরিত হতে হলে আমাদের মাথাপিছু আয়ে সাড়ে ১২ হাজারে উন্নীত করতে হবে। আর এজন্য প্রয়োজন সকল মানুষের অংশগ্রহণ। তিনি বলেন, বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নেই। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর আদর্শের অসংখ্য সৈনিক আছে। সবার সম্মিলিত উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ, চেতনা ও অসমাপ্ত স্বপ্ন বাস্তবায়ন হবে বলে জানান তিনি। 

নোয়াখালী পৌরসভার মেয়র শহীদ উল্লা খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে নোয়াখালী জেলা প্রশাসক মো. খোরশেদ আলম, পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন এবং বিএমডিএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ হাসিনুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা