kalerkantho

রবিবার । ১০ মাঘ ১৪২৭। ২৪ জানুয়ারি ২০২১। ১০ জমাদিউস সানি ১৪৪২

অস্ত্র ও মাদক মামলায় এসআই জলিলের বিচার শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ নভেম্বর, ২০২০ ১৫:৩৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অস্ত্র ও মাদক মামলায় এসআই জলিলের বিচার শুরু

অস্ত্র ও মাদক মামলায় উপপুলিশ পরিদর্শক (এসআই) মো. আ. জলিল মাতব্বরের বিরুদ্ধে  অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। এর মধ্য দিয়ে দুই মামলায় আসামির আনুষ্ঠানিক বিচার শুরু হলো।

আজ রবিবার ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলম আসামির অব্যাহতির আবেদন নাকচ করে সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামী ৮ ডিসেম্বর দিন ধার্য করেন।

এদিন কারাগারে থাকা আ. জলিল মাতব্বরকে আদালতে হাজির করা হয়। আসামির পক্ষে তাঁর আইনজীবী খলিলুর রহমান অব্যাহতি চেয়ে শুনানি করেন। রাষ্ট্রপক্ষে সাবিনা ইয়াসমিন (দিপা) অভিযোগ গঠনের পক্ষে শুনানি করেন।

উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত আ. জলিল মাতব্বরের কাছে জানতে চান তিনি দোষী না নির্দোষ। এ সময় আ. জলিল মাতব্বর নিজেকে নির্দোষ দাবি করে ন্যায়বিচার প্রার্থনা করেন। এরপর আদালত আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের আদেশ দেন। এ ছাড়া আসামি জলিল মাতব্বরের জামিন আবেদন করেন তাঁর আইনজীবী। রাষ্ট্রপক্ষ থেকে জামিনের বিরোধিতা করা হয়। শুনানি শেষে আদালত জামিনের আবেদনও খারিজ করেন।

গত ১৯ ফেব্রুয়ারি দারুস সালাম থানা এলাকা থেকে জলিল মাতব্বরকে আটক করা হয়। তিনি নারায়ণগঞ্জের জেলা গোয়েন্দা শাখায় (ডিবি) কর্মরত ছিলেন।

জানা যায়, এসআই আবদুল জলিল মাতব্বর তাঁর বিভিন্ন জিনিসপত্র কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে গোপালগঞ্জের উদ্দেশে পাঠিয়েছিলেন। পার্সেলটি দারুস সালামে কুরিয়ার সার্ভিসের অফিসে থাকার সময় তা থেকে মাদকের গন্ধ ছড়াতে থাকে। ভেতরে নিষিদ্ধ সামগ্রী থাকতে পারে বলে সন্দেহ হওয়ায় কুরিয়ার কর্তৃপক্ষ বিষয়টি পুলিশকে জানায়। দারুস সালাম থানা পুলিশ গিয়ে পার্সেল খুলে পাঁচ হাজার ২৮৯ পিস ইয়াবা, এক কেজি ৩০০ গ্রাম গাঁজা, ৪০ দশমিক ৭৫ গ্রাম হেরোইন, ৯ ক্যান বিয়ার, ৯৮৮ পিস ইয়াবাসদৃশ ট্যাবলেট এবং ২৭ রাউন্ড গুলি, দুটি ম্যাগাজিন ও একটি পিস্তল উদ্ধার করে।

ওই দিনই তাঁর বিরুদ্ধে অস্ত্র ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে দারুস সালাম থানায় পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) দুলাল হোসেন মামলা দুটি দায়ের করেন। সংশ্লিষ্ট থানার এসআই (নিরস্ত্র)  নজরুল ইসলাম অস্ত্র মামলায় গত ২২ মার্চ এবং মাদক মামলায় গত ৯ জুলাই আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা