kalerkantho

শনিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৮ নভেম্বর ২০২০। ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

পূজা দেখে বাড়ি ফেরার পথে

নবীনগরে আ. লীগ নেতার ভাইয়ের ওপর সন্ত্রাসী হামলা

নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি   

২৭ অক্টোবর, ২০২০ ০৩:৪৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নবীনগরে আ. লীগ নেতার ভাইয়ের ওপর সন্ত্রাসী হামলা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার শ্যামগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দিন ওরফে ধনু মেম্বারের ছোট ভাই মো. আলমগীর হোসেন (৩৫) কে কুপিয়েছে সন্ত্রাসীরা। সোমবার রাত আনুমানিক ৯টার দিকে বাড়ি ফেরার পথে তিনি পথিমধ্যে এই সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছেন। তাকে আশংকাজনক অবস্থায় রাতেই কুমিল্লায় পাঠানো হয়েছে।

শ্যামগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা আমীর হোসেন বাবুলের লোকজন এ সন্ত্রাসী হামলা করেছে বলে আওয়ামী লীগ নেতা ধনু মেম্বার রাতে কালের কণ্ঠের কাছে অভিযোগ করেন। যদিও এ অভিযোগ সরাসরি অস্বীকার করেছেন বর্তমান চেয়ারম্যান আমীর হোসেন বাবুল।

এলাকাবাসী জানান, আওয়ামী লীগ নেতা ধনু মেম্বারের চাচাতো ভাই, স্থানীয় ড্রেজার ব্যবসায়ী আলমগীর হোসেন রাতে দুর্গাপূজা দেখে রাতে গ্রামের বাড়ি শ্যামগ্রামের বানিয়াচংয়ে ফিরছিলেন। এসময় রাত আনুমানিক ৯টার দিকে বানিয়াচংয়ের মোড়ে পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী তার ওপর অতর্কিতে হামলা চালায়।

এসময় সন্ত্রাসীরা ধারাল অস্ত্র দিয়ে তাকে কুপিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে চলে যায়। পরে তাকে আশংকাজনক অবস্থায় নবীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে কুমিল্লায় রেফার করেন।

আওয়ামী লীগ নেতা ধনু মেম্বার রাতে কালের কণ্ঠের এ প্রতিনিধিকে বলেন, 'বিএনপি নেতা ও বর্তমান চেয়ারম্যান আমীর হোসেন বাবুলের লোকজন পরিকল্পিতভাবে পূর্ব রাজনৈতিক বিরোধের জের ধরে আমার ভাইকে হত্যার উদ্দেশ্যে এ সন্ত্রাসী হামলা করেছে।'

তবে শ্যামগ্রাম ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা আমীর হোসেন বাবুল এ অভিযোগ সরাসরি অস্বীকার করে বলেন, 'ঘটনার সময় আমি বাজারে ছিলাম। পরে রাতে বাসায় এসে এ হামলার ঘটনা শুনেছি। আমার বিরুদ্ধে এসব অপপ্রচার। আমি এ হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়ে সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত অপরাধীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানাই।'

নবীনগর সার্কেলের দায়িত্বে থাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মকবুল হোসেন রাতে কালের কণ্ঠকে বলেন, 'ঘটনাটি খতিয়ে দেখে দ্রুত প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা