kalerkantho

সোমবার । ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ৩০ নভেম্বর ২০২০। ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২

সরকারের লোকদের দাপটে কোনও পেশার মানুষের নিরাপত্তা নেই : প্রিন্স

অনলাইন ডেস্ক   

২৬ অক্টোবর, ২০২০ ১৭:২৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সরকারের লোকদের দাপটে কোনও পেশার মানুষের নিরাপত্তা নেই : প্রিন্স

এই সরকারের লোকদের ক্ষমতার দাপটে দেশের কোনও শ্রেণী-পেশার মানুষের জীবনের নিরাপত্তা ও সম্মান নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও চলতি দপ্তরের দায়িত্বে থাকা এমরান সালেহ প্রিন্স। আজ সোমবার বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন। 

সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স বলেন, আওয়ামী দুঃশাসন বিরোধী গণতন্ত্র পূণঃরুদ্ধারের আন্দোলনের অংশ হিসেবে বিএনপি এই উপ-নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে। বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিলেই যেন সরকার ও আওয়ামী লীগের মধ্যে অস্থিরতা শুরু হয়। তারা বিএনপি-কে যেমন ভয় পায় তেমনি জনগণের অংশগ্রহণে উৎসবমূখর পরিবেশে অবাধ, নিরপেক্ষ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনকেও ভয় পায়। তারা জানে অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ এবং গ্রহণযোগ্য ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলে তাদের ভরাডুবি সুনিশ্চিত। সেজন্য নির্বাচন প্রক্রিয়া শুরু হওয়া মাত্রই আওয়ামী লীগ নির্বাচনী বিধি-বিধানকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দলীয় ও রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস চালিয়ে বিএনপি প্রার্থী ও তাদের কর্মী-সমর্থকদের ওপর হামলা, মামলা, হুমকি ও ভয়-ভীতি প্রদর্শণের মাধ্যমে নির্বাচনী পরিবেশকে ধ্বংস করে জনগণের ভোটাধিকার হরণ করে নির্বাচনকে ব্যর্থ করে দিতে চায়। 

সংবাদ সম্মেলনে প্রিন্স আসন্ন নির্বাচনে গণসংযোগ চাল্নোর সময় তাদের কর্মীদের সরকারি দলের নেতা কর্মী দ্বারা আঘাত ও হামলার বিবরণ তুলে ধরেন।  ঢাকা-১৮ এবং সিরাজগঞ্জ-১ আসনে আমাদের কর্মীদের ওপর হামলা চালানো যাচ্ছে। যা গত নির্বাচনেও চালানো হয়েছিল।

গতকাল রাজধানীর কলাবাগানে মিডনাইট নির্বাচনের এক সংসদ সদস্যের ছেলে ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা সশস্ত্র বাহিনীর এক কর্মকর্তা ও তাঁর সহধর্মীনির ওপর হামলা, তাদেরকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত ও মারাত্মকভাবে রক্তাক্ত করেছে। আমরা এই ন্যাক্কারজনক হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে হামলাকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি করছি। এই সরকারের লোকদের ক্ষমতার দাপটে দেশের কোনও শ্রেণী-পেশার মানুষের জীবনের নিরাপত্তা ও সম্মান নেই। কক্সবাজারের ওসি প্রদীপ কর্তৃক সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহার হত্যা, সিলেটে পুলিশি হেফাজতে রায়হান হত্যাসহ এধরনের ঘটনা এখন নিত্যদিনের ঘটনায় পরিণত হয়েছে।

প্রিন্স বলেন, শারদীয় দুর্গাপুজার প্রাক্কালে ফরিদপুরের বোয়ালমারি, পটুয়াখালীর বাউফল এবং সম্প্রতি গাজীপুরে মন্দির ও পুজামন্ডপে হামলা ও প্রতিমা ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। ঘটেছে চাঁদাবাজীর ঘটনা। এর আগেও মন্দির, প্যাগোডা ও গির্জায় এধরণের হামলা সংঘটিত হয়েছে। অবিলম্বে হামলাকারী ও চাঁদাবাজদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি করছি। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি এই ধরণের ন্যাক্কারজনক ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ধিক্কার জানানো সহ পুজা উদযাপনে যথাযথ নিরাপত্তা প্রদানের জন্য প্রশাসনের কাছে জোর আহবান জানাচ্ছে।

তিনি বলেন, ২০২০ সালে আজ পর্যন্ত এমন একটি দিনও বাদ যায়নি যেদিন রাজধানী কিংবা দেশের কোথাও নারী ও শিশু ধর্ষণের ঘটনা সংঘটিত হয়নি। বর্তমান অবৈধ সরকার কর্তৃক রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার অপব্যবহার করে ভিন্ন দল ও মতের মানুষদেরকে অপমান নির্যাতন করা হচ্ছে, আইন আদালতকে নিজেদের মতো ব্যবহার করা হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলায় জাতীয়তাবাদী যুবদলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক টিমের উপস্থিতিতে কর্মীসভার ওপর আইন শৃঙ্খলা বাহিনী গুলিবর্ষণসহ বেপরোয়া হামলা চালিয়েছে। এই হামলায় যুবদলের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি জাকির হোসেন, আশিকুর রহমান মাহমুদ ওয়াসিম, যুগ্ম সম্পাদক আলী আশরাফসহ কেন্দ্রীয়, জেলা ও স্থানীয় অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। বিএনপি’র পক্ষ থেকে এই ন্যাক্কারজনক পুলিশী হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও ধিক্কার জানাচ্ছি। আহত নেতাকর্মীদের আশু সুস্থতা কামনা করছি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা