kalerkantho

সোমবার । ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৩ নভেম্বর ২০২০। ৭ রবিউস সানি ১৪৪২

'রাজনীতিকে পরিশীলিত, পরিমার্জিত ও সৃজনশীল করা দরকার'

নিজস্ব প্রতিবেদক    

২৬ অক্টোবর, ২০২০ ১৪:৪৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



'রাজনীতিকে পরিশীলিত, পরিমার্জিত ও সৃজনশীল করা দরকার'

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, 'নীতির রাজাকে ধারণ ও চর্চা করাই হচ্ছে রাজনীতি। এজন্য রাজনীতিকে আরো পরিশীলিত, পরিমার্জিত এবং সৃজনশীল করা দরকার।'

আজ সোমবার (২৬ অক্টোবর) সকালে শেরেবাংলা এ কে ফজলুল হকের ১৪৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে রাজধানীর শেরেবাংলার মাজার প্রাঙ্গণে বরিশাল বিভাগ সমিতির উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন মন্ত্রী।

রেজাউল করিম বলেন, রাজনীতি যদি পরিশীলিত, পরিমার্জিত ও সৃজনশীল না হয় তাহলে আমাদের ভবিষ্যত ভালো হওয়ার অবকাশ থাকবে না। রাজার নীতিকে রাজনীতি বলা থেকে দূরে সরে শ্রেষ্ঠ নীতি, নৈতিকতা, সততা ও মূল্যবোধকে ধারণের মাধ্যমে শেরে বাংলাদের আদর্শকে বাস্তবায়ন করতে হবে।'

বরিশাল বিভাগ সমিতির সভাপতি ইতিহাসবিদ সিরাজ উদদীন আহমেদের সভাপতিত্বে আলোচনাসভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পিরোজপুর জেলা সমিতির সভাপতি ও সরকারের সাবেক সচিব মো. শামসুল হক, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের চেয়ারম্যান মো. ইসমাইল ও শেরেবাংলা এ কে ফজলুল হকের দৌহিত্র এ কে ফাইয়াজুল হক রাজু।

সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন বরিশাল বিভাগ সমিতির সাধারণ সম্পাদক এম এ জলিল। এছাড়া বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এতে বক্তব্য দেন।

মন্ত্রী বলেন, 'একটি সমাজে যখন সৎ ও ভালো মানুষের কদর কমে যায় তখন সমাজ ব্যবস্থা, সভ্যতা নষ্ট হয়ে যায়। সবার জন্য সমন্বিত চিন্তা করার জায়গা শেরেবাংলা এ কে ফজলুল হক ধারণ, লালন, চর্চা এবং বিশ্বাস করতেন। তিনি যেটি  বিশ্বাস করতেন, সেটি কার্যকর করতেন। তাঁর ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তে ঋণ সালিশি বোর্ড কৃষককূলকে মুক্ত করে দিয়েছিল। তিনি কৃষকের বেদনা বুঝতেন, কৃষকের চাওয়া-পাওয়া ও সমস্যা বুঝতেন। এ ভূখণ্ডের মানুষের জন্য  তিনি মৌলিক পরিবর্তন আনতে চেয়েছিলেন। সে পরিবর্তন আনার লড়াইয়ে তখন রাজনীতি তত সহজ ছিল না।'

শ ম রেজাউল করিম আরো বলেন, 'জাতির পিতা বলতেন রাজনীতি নিজের বিত্ত-বৈভব বাড়ানোর জন্য নয়। মানুষের কল্যাণে, দেশের সেবায় আত্মোৎসর্গ করাই হচ্ছে রাজনীতি। সে জায়গা শেরেবাংলা এ কে ফজলুল হক ধারণ করতেন। একা সুখে না থেকে সকলকে কীভাবে সুখী রাখা যায় সেই অনুভূতি থেকে শেরেবাংলারা রাজনীতি করতেন। তিনি বলেন, 'শেরেবাংলার রাজনীতির উত্তরসূরি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। শেরেবাংলার ধারাবাহিকতায় মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী, হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনীতির মৌলিক জায়গা ধারণ করেন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা।'

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী বলেন, 'রাজনীতিতে আমরা অনেকেই নিজের ভাগ্য পরিবর্তনের লক্ষ্য নিয়ে আসি। এ জায়গা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। যারা তথাকথিত রাজনীতি করতে চান, যারা শুধু ক্ষমতাকেই রাজনীতি মনে করেন,  তাদেরকে পরিহার করতে হবে। যাদের অনেক বিত্ত-বৈভব আছে তাদের চেয়ে যাদের দেশপ্রেমের মন আছে তাঁদেরকে আজ বড় প্রয়োজন। সকলে মিলে ন্যায়, সততা ও আদর্শের রাজনীতিকে ধারণ করতে হবে।'

আলোচনাসভার আগে মন্ত্রী ও অন্যান্য অতিথিরা শেরেবাংলা এ কে ফজলুল হকের মাজারে ফুলেল শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা