kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ৩ ডিসেম্বর ২০২০। ১৭ রবিউস সানি ১৪৪২

'আল্লাহর জিনিস আল্লাহ নিয়ে গেছেন'

অনলাইন ডেস্ক   

২২ অক্টোবর, ২০২০ ১০:২৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'আল্লাহর জিনিস আল্লাহ নিয়ে গেছেন'

ছবি: দাফনের আগে নড়ে ওঠা শিশু মরিয়ম।

জন্মের পরপরই ঢাকা মেডিক্যাল (ঢামেক) হাসপাতালের চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এরপর দাফনের মুহূর্তে হঠাৎ নড়েচড়ে ওঠে আমার সন্তান। সেখানে থেকে হাসপাতালে আনা হলে ভালোই চলছিল সন্তানের চিকিৎসা। আশা করেছিলাম সন্তান আমার ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠবে, তাকে নিয়ে বাসায় ফিরব। বড় মেয়ের সঙ্গে খেলাধুলা করবে। অবশেষে আমাদের ছেড়ে চলে গেল। আল্লাহর জিনিস আল্লাহ নিয়ে গেছেন।

চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার (২১ অক্টোবর) রাতে ঢামেক হাসপাতালের ২১১ নম্বর নবজাতক ওয়ার্ডে সেই নবজাতকের মৃত্যুর পর এভাবেই আর্তনাদ করছিলেন বাবা ইয়াসিন মোল্লা।

ইয়াসিন মোল্লা বলেন, মৃত্যুর আগে ওর নাম রেখেছিলেন মরিয়ম। আল্লাহর জিনিস আল্লাহ নিয়ে গেছেন। রাতের মধ্যেই দাফনের চেষ্টা করা হচ্ছে। বসিলা কবরস্থানে যেখানে আগে তার জন্য কবর খোঁড়া হয়েছিল। যেখানে নড়ে উঠেছিল, সেই কবরস্থানে চেষ্টা করছি দাফনের। অসুস্থ থাকায় নবজাতকের মাকে এখনো মৃত্যুর খবর জানানো হয়নি। সবাইকে নিষেধ করেছি নবজাতকের মা-কে সন্তান মৃত্যুর খবর না দেওয়ার জন্য।

তিনি বলেন, এটা ছিল তার দ্বিতীয় সন্তান। ৯ বছর বয়সী তাঁর আরো একটি কন্যাসন্তান আছে। এ ঘটনার পরপরই হাসপাতালে তোলপাড় সৃষ্টি হয় এবং এ ঘটনার জন্য চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এবং সে তদন্ত রিপোর্টে কর্তব্যরত চিকিৎসকের অবহেলার দায় স্বীকার করেন ঢামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন এবং শিশুটি ভর্তি হওয়ার পর থেকেই সব সময় তাঁরা বলে আসছিলেন তার অবস্থা ভালো। পরিপূর্ণ সময় নিয়ে জন্মায়নি শিশুটা, এর জন্যই তার অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা