kalerkantho

শনিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৮ নভেম্বর ২০২০। ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

দুদকের মামলায়

এনু-রুপনের জামিন আবেদন হাইকোর্টে খারিজ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ অক্টোবর, ২০২০ ১২:৩২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এনু-রুপনের জামিন আবেদন হাইকোর্টে খারিজ

বহিষ্কৃত আওয়ামী লীগ নেতা এনামুল হক ও রূপন ভূঁইয়া, ফাইল ছবি।

ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার হওয়া দুই ভাই গেণ্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের বহিস্কৃত সহ-সভাপতি এনামুল হক এনু ও যুগ্ম সম্পাদক রুপন ভূঁইয়ার জামিন আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। অবৈধভাবে সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের করা মামলায় দুই ভাই জামিনের আবেদন করেছিলেন।

বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ বুধবার এক রায়ে দুই ভাইয়ের জামিন আবেদন খারিজ করেন। দুই ভাইয়ের জামিন প্রশ্নে গত ১৫ সেপ্টেম্বর জারি করা রুলের ওপর চূড়ান্ত শুনানি শেষে আজ এ রায় দেওয়া হয়। এনু ও রুপনের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট সৈয়দ মামুন মাহবুব। দুর্নীতি দমন কমিশনের(দুদক) পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক।

গতবছর ২৪ সেপ্টেম্বর গেন্ডারিয়ায় এনু-রুপনের বাড়িতে অভিযান চালায় র‌্যাব। তাদের বাসায় টয়লেটে স্বর্ণের কমোট পাওয়া যায়। সেখান থেকে টাকা ও স্বর্ণালংকার জব্দ করা হয়। এপর ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের কর্মচারী আবুল কালাম ও এনুর বন্ধু হারুন অর রশিদের বাসায় অভিযান চালানো হয়। ওই অভিযানে ৫ কোটি ৫ লাখ টাকা, ৮ কেজি স্বর্ণালঙ্কার ও ৬টি আগ্নেয়াস্ত্র জব্দ করে র‌্যাব।

এরপর গত বছর ২৩ অক্টোবর জ্ঞাত বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দু’জনের বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা করে দুদক। মামলায় এনুর বিরুদ্ধে ২১ কোটি ৮৯ লাখ ৪৩ হাজার টাকার সম্পদ অর্জন এবং রূপনের বিরুদ্ধে ১৪ কোটি ১২ লাখ ৯৫ হাজার ৮৮২ টাকার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়। এ মামলায় গত ১৫ জুন দুই ভাইয়ের জামিন আবেদন খারিজ করে ঢাকার মহানগর সিনিয়র বিশেষ জজ আদালত। এরপর তারা জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন। হাইকোর্ট গত ১৫ সেপ্টেম্বর এক আদেশে কেন তাদের জামিন দেওয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন। এই রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষে আজ তা খারিজ করা হলো।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা