kalerkantho

শুক্রবার । ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৭ নভেম্বর ২০২০। ১১ রবিউস সানি ১৪৪২

'ধর্ষককে ছাত্র ইউনিয়নের কর্মী বলা উদ্দেশ্যমূলক'

অনলাইন ডেস্ক   

২০ অক্টোবর, ২০২০ ২১:৫৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'ধর্ষককে ছাত্র ইউনিয়নের কর্মী বলা উদ্দেশ্যমূলক'

বরিশালের আগৈলঝাড়ায় গত সোমবার কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে তিতুমীর কলেজের এক শিক্ষার্থীকে। বিভিন্ন গণমাধ্যম এবং সোশ্যাল সাইটে বলা হচ্ছে, সাজ্জাদ গাজী নামের ওই শিক্ষার্থী শাহবাগের ধর্ষণবিরোধী আন্দোলনে সক্রিয় ছিলেন এবং তিনি ঐতিহ্যবাহী ছাত্র সংগঠন ছাত্র ইউনিয়নের সদস্য। এক বিবৃতির মাধ্যমে বিষয়টির প্রতিবাদ জানিয়েছে ছাত্র ইউনিয়ন। সংগঠনটির বক্তব্য, সাজ্জাদ নামে কোনো কর্মী ছাত্র ইউনিয়নে নেই।

ছাত্র ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় কমটির দপ্তর সম্পাদক ফয়জুর মেহেদির সাক্ষরিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, 'কয়েকটি অনলাইন পত্রিকার প্রতিবেদনে সাজ্জাদ গাজীকে ছাত্র ইউনিয়নের কর্মী বলে প্রচার করা হচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে সাজ্জাদ গাজী নামে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের ঢাকা মহানগর সংসদ, বরিশাল জেলা সংসদে কোনো কর্মী নেই। প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের পর থেকে সরকারি তিতুমীর কলেজ ও অগৈলঝাড়ায় ছাত্র ইউনিয়নের কোনো কমিটি নেই।' 

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, 'বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় সংসদ এই মিথ্যা উদ্দেশ্যমূলক প্রচারণার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে। একইসঙ্গে বরিশালের অগৈলঝাড়ায় কলেজছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত সাজ্জাদ গাজীর দ্রুত বিচারের দাবি জানাচ্ছি। মূলতঃ বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের নেতৃত্বে ধর্ষণ ও বিচারহীনতার বিরুদ্ধে দেশব্যাপী যে গণআন্দোলনের সৃষ্টি হয়েছে, তাকে প্রশ্নবিদ্ধ করতেই এই ধরনের মিথ্যা ও উদ্দেশ্যমূলক প্রচার চালানো হচ্ছে।'

উল্লেখ্য, মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার বাগধা ইউনিয়নের আমবৌলা গ্রামের খোরশেদ গাজীর ছেলে সাজ্জাদ গাজীর সঙ্গে ছয় মাস আগে একই এলাকার এক কলেজছাত্রীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ওই কলেজছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করেন সাজ্জাদ গাজী। সর্বশেষ সোমবার সন্ধ্যায় সাজ্জাদ গাজী ছাত্রীর ঘরে গিয়ে ধর্ষণ করেন। এ সময় ওই ছাত্রী চিৎকার দিলে তার মা বাইর থেকে এসে মেয়েকে উদ্ধার করেন। এলাকাবাসী এসে ধর্ষক সাজ্জাদ গাজীকে আটক করে থানা পুলিশে দেয়। এ ঘটনায় সোমবার রাতে ওই কলেজছাত্রীর মা বাদী হয়ে আগৈলঝাড়া থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা