kalerkantho

শুক্রবার। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ৪ ডিসেম্বর ২০২০। ১৮ রবিউস সানি ১৪৪২

বিডিসিএসওপ্রসেস-এর বার্ষিক সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশন

আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রতি ঔপনিবেশিক আধিপত্য পরিহারের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ অক্টোবর, ২০২০ ২১:০৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রতি ঔপনিবেশিক আধিপত্য পরিহারের দাবি

প্রতীকী ছবি

বেসরকারি সংস্থা (এনজিও) ও নাগরিক সংগঠনের (সিএসও) ফোরাম বিডিসিএসওপ্রসেস-এর বার্ষিক সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশন থেকে আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রতি ঔপনিবেশিক আধিপত্য পরিহারের দাবি জানানো হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে ‘অংশিদারিত্ব এবং স্থায়িত্বশীল স্থানীয় সংগঠন গড়ে তোলার প্রক্রিয়া’ শীর্ষক দ্বিতীয় অধিবেশনে দেশি-বিদেশি ২৫০ জন প্রতিনিধি অংশ নেন।

নারীপক্ষের শিরীন হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই ভার্চুয়াল অধিবেশন সঞ্চালনা করেন বিডিসিএসও প্রসেসের জাতীয় সমন্বয়কারী রেজাউল করিম চৌধুরী। অধিবেশনে বক্তৃতা করে সুইজারল্যান্ডের ইগনাসিও প্যাকার, ফিলিপাইনের নানেত্তে এনটিকুইসা, যুক্তরাষ্ট্রের হাওয়ার্ড মোলেট, মালটেজার ইন্টারন্যাশনালের রাজন ঘিমিরে, এডাবের একেএম জসিম উদ্দিন, সিডিএফ’র মোরশেদ আলম সরকার, সুপ্র’র আব্দুল আউয়াল, উদয়ন বাংলাদেশের শেখ আসাদ, মুক্তিযোদ্ধা আকবর হোসেন প্রমূখ।

সভাপতির বক্তব্যে শিরীন হক বলেন, ঔপনিবেশিকতা ইতিহাসের অনেক পুরোন বিষয়। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই এর চর্চা এখনও রয়েছে। বিশেষ করে এনজিওদের সাথে বিদেশি সংস্থার অংশিদারিত্ব স্থাপনের সময় এটা দেখা যায়। এটি পরিহার করতে হবে। স্থানীয় সংগঠনের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক সংস্থাকেও একই ধরণের নিয়মের মধ্যে আসার আহ্বান জানান তিনি।

২০০৭ সালে প্রতিষ্ঠিত অংশিদারিত্বের নীতিমালার কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে অধিবেশনের বক্তারা বলেন, স্থায়িত্ব নিশ্চিত করতে জাতিসংঘের এজেন্সি থেকে শুরু করে এনজিও সকলকেই পরষ্পরের পরিপূরকতা ও অংশগ্রহনমূলক মনোভাব নিয়ে কাজ করতে হবে। এজন্য প্রয়োজন সহমর্মী ও সমতাভিত্তিক অংশিদারিত্ব। সকল কাজে জবাবদিহিতা ও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করার আহ্বান জানান তারা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা