kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৩ কার্তিক ১৪২৭। ২৯ অক্টোবর ২০২০। ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

সাবেক জেলার সোহেল রানার জামিন স্থগিত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৯:০৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাবেক জেলার সোহেল রানার জামিন স্থগিত

অর্থ পাচারের অভিযোগে করা মামলায় চট্টগ্রাম কারাগারের সাবেক জেলার সোহেল রানা বিশ্বাসকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন স্থগিত করেছেন আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি মো. নূরুজ্জামান। দুদকের আবেদনে ৮ সপ্তাহের জন্য এই স্থগিতাদেশ দিয়েছেন আদালত। দুদকের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান। সোহেল রানার পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট শাহ মঞ্জুরুল হক। 

এর আগে এ মামলায় গত ১৬ জুন হাইকোর্ট সোহেল রানাকে জামিন দিয়েছিলেন। নিম্ন আদালতে পাসপোর্ট জমা রাখার শর্তে এই জামিন দেওয়া হয়েছিল। এই জামিন গত ২৩ জুন স্থগিত করে দেন আপিল বিভাগ। এরপর ২৫ জুন দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) সোহেল রানার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে। এ অবস্থায় গত ২৩ জুলাই নিম্ন আদালতে জামিন আবেদন করেন সোহেল রানা। নিম্ন আদালত আবেদনটি খারিজ করলে আবার হাইকোর্টে জামিন আবেদন করা হয়। হাইকোর্ট গত ২০ সেপ্টেম্বর সোহেল রানাকে ছয়মাসের জামিন দেন। এই আদেশ স্থগিত করতে দুদক আবেদন করে।

ভৈরব রেলওয়ে স্টেশনে ময়মনসিংহগামী বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনের একটি বগি থেকে চট্টগ্রাম কারাগারের জেলার সোহেল রানাকে একটি ব্যাগসহ ২০১৮ সালের ২৭ অক্টোবর গ্রেপ্তার করা হয়। তার ব্যাগ থেকে ৪৪ লাখ ৪৩ হাজার টাকা, স্ত্রীর নামে আড়াই কোটি টাকার তিনটি ব্যাংক এফডিআর, এক কোটি ৩০ লাখ টাকার তিনটি ব্যাংক চেক, পাঁচটি চেক বই ও ১২ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। পরে তার বিরুদ্ধে ভৈরব রেলওয়ে থানায় মানি লন্ডারিং ও মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে পৃথক দুটি মামলা করে রেলওয়ে পুলিশ। সোহেল রানা বর্তমানে কিশোরগঞ্জ কারাগারে বন্দী।

এ ঘটনার আগেও সোহেল রানা কারাগারে মাদক ব্যবসাসহ অফিসিয়াল শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে একবার বরখাস্ত হয়েছিলেন। এ ছাড়াও ২০১০ সালে কর্তব্যে অবহেলা ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার নির্দেশ অমান্য করার অভিযোগে তাকে বরখাস্ত করা হয়। এ সময় তার চাকরি চলে গেলে তিনি বিভাগীয় মামলায় আপিল করে ক্ষমা চেয়ে চাকরি ফিরে পান। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা