kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৩ কার্তিক ১৪২৭। ২৯ অক্টোবর ২০২০। ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

‘ধর্ষণ বাংলাদেশে মহামারি আকার ধারণ করেছে’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৬:১৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘ধর্ষণ বাংলাদেশে মহামারি আকার ধারণ করেছে’

আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে সিলেটের এমসি কলেজ এবং খাগড়াছড়িতে উপজাতি ধর্ষণে অভিযুক্ত ধর্ষকদের বিচার করার দাবি জানিয়েছে ইসলামী শাসনতন্ত্র (ইশা) ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতি এম হাছিবুল ইসলাম। অন্যথায় আগামী ১ অক্টোবর সারা দেশে জেলায় জেলায় বিক্ষোভ মিছিলের ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবেরর সামনে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ঢাকা মহানগরের আয়োজনে দেশব্যাপী অব্যাহত ধর্ষণ ও নারী সহিংসতার প্রতিবাদ এবং ধর্ষকদের দ্রুত বিচার আইনে সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ আল্টিমেটাম দেন তিনি।
এসময় হাছিবুল ইসলাম বলেন, ধর্ষণ বাংলাদেশে মহামারি আকার ধারণ করেছে। দীর্ঘদিনের বিচারহীনতার সংস্কৃতির পাশাপাশি ক্ষমতাসীনদের ছত্রছায়ায় দেশব্যাপী যেন ধর্ষণ উৎসব চলছে। এর দায়ভার সম্পূর্ণভাবে এ ফ্যাসিবাদী সরকারের।

তিনি আরো বলেন, নারী ক্ষমতায়নের মুখরোচক বুলির আড়ালে চলছে নারীর প্রতি সহিংসতা। বর্তমান সরকার আজ নারীর নিরাপত্তা নিশ্চিতে পরিপূর্ণভাবে ব্যর্থ। শুধু সিলেটের এমসি কলেজ নয়, সারা দেশে আজ ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগে ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ধর্ষণের মাধ্যমে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। এভাবে একটি দেশ চলতে পারে না। অনতিবিলম্বে ধর্ষকদের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে বিচার কার্যকর করতে হবে। 

সংগঠনের ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি মুহাম্মাদ আব্দুর রাজ্জাকের সভাপতিত্বে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রিয়াদ, প্রচার ও আন্তর্জাতিক সম্পাদক কে এম শরীয়াতুল্লাহ, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় সম্পাদক এম এম শোয়াইব, সাহিত্য ও সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, সদস্য মুনতাছির আহমাদ, জামালুদ্দিন মুহাম্মাদ খালিদ, মজলিসে শুরার সদস্য শিব্বির আহমদ, ঢাকা নগর পূর্বের সভাপতি আখতারুজ্জামান মাহদী, নগর পশ্চিমের সহ সভাপতি রায়হান চৌধুরী, দক্ষিণ সাধারন সম্পাদক কাওছার আহমাদ প্রমুখ।

সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল প্রেস ক্লাব থেকে কদম ফোয়ারা ঘুরে পুরানা পল্টনে ইশা চত্ত্বরে গিয়ে শেষ হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা