kalerkantho

সোমবার । ১০ কার্তিক ১৪২৭। ২৬ অক্টোবর ২০২০। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

র‍্যাবের সোর্সসহ দুজন খুন

৯৯৯-এ ফোন পেয়ে একজন গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক    

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



র‍্যাবের সোর্সসহ দুজন খুন

প্রতীকী ছবি

রাজধানীর মোহাম্মদপুরের পুলপাড় এলাকায় নজরুল ইসলাম (৪৫) নামে এক মুদি দোকানিকে ছুরিকাঘাত করে খুন করা হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুরের এ ঘটনায় রাহাত নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

এ ছাড়া গতকাল সকালে ঢাকার কেরানীগঞ্জ উপজেলায় র‍্যাবের এক সোর্সকে দুর্বৃত্তরা ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। নিহতের নাম আলমগীর হোসেন (২২)। তদন্তসংশ্লিষ্ট পুলিশ ও র‍্যাব সূত্রে জানা গেছে, আগের কোনো বিরোধ বা স্বার্থসংশ্লিষ্ট কারণে এঁদের হত্যা করা হতে পারে।

মুদি দোকানি খুন : গতকাল দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পুলপাড় হোসেন সাহেবের গলিতে নিজের মুদি দোকানে ব্যস্ত ছিলেন নজরুল। ওই সময় রাহাত নামের এক যুবক দোকানে ঢুকে তাঁর পেটে ছুরিকাঘাত করলে গুরুতর আহত হন তিনি। আশপাশের লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

মোহাম্মদপুর থানার ওসি মো. আ. লতিফ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ঘটনার পরপরই ট্রিপল (৯৯৯) নাইনে ফোন দেয় আশপাশের লোকজন। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে আমরা রাহাতকে আটক করি। কী কারণে এ ঘটনা ঘটেছে তা জানার চেষ্টা চলছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ওই হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী বাদী হয়ে মামলা করেছেন।’ 

র‍্যাবের সোর্সকে হত্যা : গতকাল সকালে কেরানীগঞ্জের ভাগনা মাদরাসা রোড এলাকায় র‍্যাবের সোর্স আলমগীরকে ছুরি মেরে হত্যা করা হয়। ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয় বলে জানিয়েছেন ঘটনাস্থল পরিদর্শনকারী কেরানীগঞ্জ মডেল থানার এসআই মো. সাদ্দাম মোল্লা।

তিনি বলেন, আলমগীর অটোরিকশা চালানোর পাশাপাশি র‍্যাবকে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করতেন। বুকের বাঁ পাশে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে তাঁর। এ ঘটনায় নিহতের বড় ভাই জুয়েল বাদী হয়ে অজ্ঞাতদের আসামি করে থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন। ময়নাতদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ (মিটফোর্ড) হাসপাতাল মর্গে তাঁর লাশ পাঠানো হয়েছে। 

র‍্যাব-১০-এর কমান্ডার এএসপি আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘আলমগীর মাঝে মাঝে বিভিন্ন তথ্য দিয়ে র্যাবকে সহযোগিতা করতেন।’

আলমগীর কেরানীগঞ্জের শুভাঢ্যা ইউনিয়নের শুভাঢ্যা উত্তরপাড়া এলাকার মা-বাবা, স্ত্রী ও এক সন্তান নিয়ে ভাড়া বাসায় থাকতেন। আলমগীরের ভাই জুয়েল বলেন, ‘আমার ভাইকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। আমরা হত্যাকারীদের ফাঁসি চাই।’ 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা