kalerkantho

শনিবার । ৮ কার্তিক ১৪২৭। ২৪ অক্টোবর ২০২০। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

কৃষি উদ্যোক্তার জন্য চালু হচ্ছে বিপণন ডাক সেবা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৯:৫০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কৃষি উদ্যোক্তার জন্য চালু হচ্ছে বিপণন ডাক সেবা

কৃষক ও কৃষি উদ্যোক্তাদের জন্য শিগগিরই পিপণন ডাক সেবা চালু হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ইউসুফ। আজ সোমবার একশনএইড বাংলাদেশ ও মার্কেট ডেভলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের (এমডিএফ) যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত ‘গ্রামীণ নারী কৃষি উদ্যোক্তা ও কভিড-১৯: একটি পথনির্দেশনা’ শীর্ষক এক ওয়েবিনারে সম্মানীয় অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘ইতোমধ্যে ফার্মার্স মার্কেটিং গ্রুপ স্থাপন করা হয়েছে এবং প্রাইসিং পলিসি বাস্তবায়নের কাজ চলছে। সফলতা পাবার জন্য একশন প্ল্যান তৈরির মাধম্যে সরকারি ও বেসরাকারি সংস্থার সহযোগিতায় সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘নারীদের যতক্ষণ পর্যন্ত প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে না ততক্ষণ পর্যন্ত তারা অনলাইন মার্কেট প্লেসে সফলতা পাবেন না। এজন্য নিজস্ব অনলাইন মার্কেট প্লেস তৈরির কাজ করছে কৃষি বিপণন অধিদপ্তর যেখানে নারীদেরও প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। দেশের ৬৪ টি জেলায় ভবিষ্যতে কৃষকের বাজার স্থাপনের কাজ চলছে যেখানে সরাসরি কৃষক তার উত্পাদিত পণ্য বাজারজাত করতে পারবে।

করোনাকালে নারী উদ্যোক্তাদের বাজার সমপ্রসারণে সাফল্য এবং এর কার্যকারিতা সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার সাথে তুলে ধরা এবং একটি যুত্সই পথ নির্দেশনার লক্ষ্যে এই ওয়েবিনারের আয়োজন করা হয়।

ওয়েবিনারে জয়িতা ফাউন্ডেশনের পরিচালক মাকসুদা খাতুন বলেন, ‘তিনটি ক্যটাগরিতে জয়িতা বর্তমানে ১৫০ রকমের পণ্য বিপণন করছে। এই করোনাকালে নারীদেরকে কিভাবে অনলাইন প্ল্যাটফর্মে ব্যবসা করতে পারে সেই বিষয়ে ট্রেনিং প্রদান করা হয়েছে। ৬৪টি জেলায় জয়িতা কর্নার স্থাপনের জন্যও উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’

গ্রামী কৃষিকে নারীরা নানান উদ্যোগের মাধম্যে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন উল্লেখ করে সভাপতির বক্তব্যে একশনএইড বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারাহ্ কবির বলেন, ‘আমরা গ্রামীণ নারীর জীবনের অবস্থান পরিবর্তনের জন্য নেদারল্যান্ডস দূতাবাসের সাথে কাজ করে যাচ্ছি। নারী উদ্যোক্তাকে উত্সাহিত করা ও উত্পাদিত পণ্যের বাজারকে নারী বান্ধব করতে হবে। ক্ষুদ্র নারী উদ্যোক্তারা নানা বাঁধা উপেক্ষা করে তাদের কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছেন। করোনা আমাদের দেখিয়ে দিয়েছে খাদ্য নিরাপত্তা খুবই জরুরি এবং এর জন্য নারী কৃষি উদ্যোক্তাকে সহায়তা ও উত্সাহিত করতে হবে’।

ওয়েবিনারে বাংলাদেশে নেদারল্যান্ডস দূতাবাসের সিনিয়র পলিসি এডভাইজার একে ওসমান হারুনী, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি ব্যবসা ও বিপণন বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, এসএমই ফাউন্ডেশনের মহাব্যবস্থাপক ফারজানা খান এবং মার্কেট ডেভলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের (এমডিএফ) সভাপতি ও হেকস/ইপারের কান্ট্রি ডিরেক্টর অনিক আসাদ সম্মানীয় প্যানেল আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে আইসিটি ডিভিশন, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের ন্যাশনাল কনসাল্টেন্ট শারমিন আক্তার, ওমেন এন্টারপ্রেনার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি শাহরুখ রহমান, ওমেন এগ্রি-এন্টারপ্রেনারের বগুড়া দলনেতা শাহিন সুলতানা সীমা, গাইবান্ধা দলনেতা মিলি খাতুন, পারমিডার সিইও আবু দারদা, দারাজ বাংলাদেশের ম্যানেজার এস কে ফারহান উদ্দীন ও মার্কেট বাংলার চিফ এক্সিকিউটিভ হাবিবুর রহমান জুয়েল প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা