kalerkantho

শনিবার । ৮ কার্তিক ১৪২৭। ২৪ অক্টোবর ২০২০। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

যৌন হয়রানির মামলা মিথ্যা- দাবি শাফিনের

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৮:৪৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যৌন হয়রানির মামলা মিথ্যা- দাবি শাফিনের

ইংলিশ স্পোকেন ও আইইএলটিএস প্রশিক্ষণ সেন্টার ‘শাফিন’স এর প্রধান শিক্ষক ও প্রতিষ্ঠাতার বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগকে ভুয়া ও মিথ্যা দাবি করেছেন শেখ বুলবুল আহমেদ (শাফিন)। তাঁর দাবি, ভুয়া যৌন হয়রানির মামলা করেছে একটি কুচক্রি মহল। এজাহারে যে সময় যৌন হয়রানির অভিযোগ করা হয় সে সময় দেশেই ছিলেন না বলে জানিয়েছেন তিনি।

সোমবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) যৌন হয়রানির মিথ্যা মামলা দিয়ে সম্মানহানী ও ব্যবসায়ীক ক্ষতির প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। মিথ্যা মামলা দেওয়ার সঙ্গে জড়িত ও বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যারা কুত্সা রটনা করছে তাদের বিচার দাবি জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, মামলার কথিত বাদি নারী সাদিয়া আফরিনের কোনো অস্তিত্বই খুঁজে পায়নি পুলিশ। এই মামলায় শাফিন একাধিকবার আদালতে হাজিরা দিলেও বাদী সাদিয়া আফরিন একবারও আদালতে আসেননি। অবশেষে মামলার আসামি শেখ বুলবুল আহম্মেদকে (শাফিন) মামলা থেকে অব্যাহতি প্রদান করেন আদালত।

শাফিন বলেন, প্রায় ২০ বছর ধরে ইংলিশ স্পোকেন ও আইইএলটিএস প্রশিক্ষণ সেন্টার ‘শাফিন’স এর মাধ্যমে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশাপাশি পেশাজীবীদের ইংরেজি ভাষা শিখিয়ে আসছেন। কোচিং সেন্টারের পাশাপাশি গত পাঁচ বছর যাবত নিজস্ব একটি ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে অনলাইনে ফ্রি ইংলিশ শেখান তিনি।

শেখ বুলবুল আহমেদের (শাফিন) দাবি, তাঁর পরিচালিত ইউটিউব চ্যানেলটি দেশের শীর্ষ চ্যানেলে পরিনত হয়। চ্যানেলটিতে সাবসক্রাইবার ৬ লাখেরও বেশী। তবে একটি কুচক্রী মহল ব্যবসায়ীক সাফল্য ও জনপ্রিয়তায় গত বছর গুলশানের একটি রেস্টুরেন্টে শেখ বুলবুল আহমেদের সাথে সুপে ব্যাটারি পাওয়া নিয়ে একটি তুচ্ছ ঘটনায় সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়। ঐ ঘটনার পরই একটি মহল তার ব্যবসায়ীক ক্ষতি ও সম্মানহানীর জন্য নানা তত্পরতা চালায়। এরই ধারাবাহিকতায় গত বছরের জুলাইয়ে তার নামে তারই কোচিং সেন্টারের ছাত্রী পরিচয়ে এক তরুণী যৌন হয়রানির মামলা করে। যা ইতিমধ্যেই আদালতে ভয়া প্রমাণিত হয়েছে।

সাদিয়া আরফিন নামক ওই তরুনী বাদী হয়ে মিরপুর পল্লাবী থানায় গত বছরের ১০ জুলাই শেখ বুলবুলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। যে মামলার চার্জশিট নম্বর ১২০ যা ০২ অক্টোবর ২০১৯ তারিখে আদালতে প্রেরণ করা হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা