kalerkantho

শুক্রবার । ৭ কার্তিক ১৪২৭। ২৩ অক্টোবর ২০২০। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

চট্টগ্রাম ওয়াসার এমডির বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগের কী হলো : জানতে চান হাইকোর্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৮:১১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চট্টগ্রাম ওয়াসার এমডির বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগের কী হলো : জানতে চান হাইকোর্ট

চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এ কে এম ফজলুল্লাহর বিরুদ্ধে বিদেশে অর্থপাচার, দুর্নীতিসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ অনুসন্ধান চেয়ে করা আবেদনের বিষয়ে কী পদক্ষেপ নিয়েছে তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট। এক মাসের মধ্যে তা জানাতে দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আদালতের এই আদেশ বুধবারই ফ্যাক্সযোগে চট্টগ্রামের দুদক কার্যালয়ে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন আইনজীবী। 

বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ বুধবার এ আদেশ দেন। চট্টগ্রামের কোতোয়ালি থানাধীন ৪৯ নম্বর মোমিন রোডের (খাদেম বাড়ি) বাসিন্দা মো. হাসান আলীর করা এক রিট আবেদনে এ আদেশ দেন আদালত। রিট আবেদনকারীর পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট ইকরাম উদ্দিন খান চৌধুরী। দুদকের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার মো. নওশের আলী মোল্লা। 

রিট আবেদনে একেএম ফজলুল্লাহ’র বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় দুদকের নিষ্ক্রিয়তা এবং পুনরায় নিয়োগের ওয়াসা বোর্ডের সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্চ করে এ রিট আবেদন করা হয়। আবেদনে পুনরায় নিয়োগের ওয়াসা বোর্ডের ৭ সেপ্টেম্বরের সিদ্ধান্ত স্থগিত চাওয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম ওয়াসার এমডি হিসেবে একেএম ফজলুল্লাহ’র মেয়াদ বাড়ানোর সুপারিশ বিষয়ে গত ১০ সেপ্টেম্বর ‘চট্টগ্রাম ওয়াসায় চুক্তিভিত্তিক দায়িত্বে ১১ বছর, অশীতিপর এমডির মেয়াদ আবার বাড়ানোর সুপারিশ’ শিরোনামে দৈনিক কালের কণ্ঠ পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন এবং একেএম ফজলুল্লাহ’র বিরুদ্ধে বিদেশে অর্থ পাচার, দুর্নীতি, অব্যবস্থাপনা, আউটসোর্সিং নিয়োগের নামে বাণিজ্যসহ বিভিন্ন অভিযোগে বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন যুক্ত করে এ রিট আবেদন করা হয়।

৮০ বছর বয়সী একেএম ফজলুল্লাহ গত ১১ বছর ধরে চট্টগ্রাম ওয়াসার চেয়ারম্যান ও এমডি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। ওয়াসার নির্বাহী প্রকৌশলী পদে পূর্ণ মেয়াদে দায়িত্ব পালন শেষে ১৯৯৮ সালে অবসর গ্রহণকারী ফজলুল্লাহ ২০০৯ সালের ৮ জুলাই এক বছরের জন্য চট্টগ্রাম ওয়াসার চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ পান। এরপর তিন মাসের জন্য এমডি হিসেবে নিয়োগ পান। পরবর্তীতে তার মেয়াদ আরো কয়েকবার বাড়ানো হয়। সর্বশেষ সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ৩১ অক্টোবর তার মেয়াদ শেষ হবার কথা। কিন্তু এর আগেই গত ৭ সেপ্টেম্বর বোর্ডসভায় আরো তিন বছরের জন্য তাঁর নিয়োগের সুপারিশ করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা