kalerkantho

রবিবার। ৫ আশ্বিন ১৪২৭ । ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০। ২ সফর ১৪৪২

কদমতলী থানার এসআইসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১৩ আগস্ট, ২০২০ ১৭:৫২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কদমতলী থানার এসআইসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা

মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর ভয়, হত্যার হুমকি দেখিয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগে রাজধানীর কদমতলী থানা পুলিশের এসআই নাজমুলসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে এক ব্যবসায়ী আদালতে মামলা দায়ের করেছেন।

আজ বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর হাকিম বেগম ইয়াসমিন আরার আদালতে মামলাটি দায়ের করেন লাভেলো আইসক্রিমের সাবেক রেফ্রিজারেটর অপারেটর ও ব্যবসায়ী ইমরান হোসেন। আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ শেষে ডিবি পুলিশকে অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন- লাভেলো আইসক্রিমের এরিয়া ম্যানেজর উজ্জল হোসেন ও মার্কেটিং অফিসার সানাউল হক, সেলসম্যান তারিকুল, আলম, শামীম, জুবায়ের, সজীব ও রবিউল।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ইমরান হোসেন তাউফিকা ফুডস অ্যান্ডঅ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের সহযোগী প্রতিষ্ঠান লাভেলোর রেফ্রিজারেটর অপারেটর হিসেবে কর্মরত থাকাকালে তার ভাইয়ের প্রতিষ্ঠান এমএসটি এন্টারপ্রাইজের নামে ৮৬ হাজার ৪০০ টাকা জামানত দেন। পরে ইমরান নিজেই ব্যবসা শুরু করেন। আইসক্রিম কম্পানিটি ডাম্পিং সুবিধা দিয়ে গত বছর ২০ অক্টোবর পর্যন্ত আসামিরা বাদীর কাছ থেকে এক লাখ ৭৫ হাজার টাকা অগ্রিম নেন। এ ছাড়া নষ্ট পণ্য বাবদ তাঁর কাছ থেকে আরো ১৬ হাজার টাকা নেওয়া হয়। এর পরও সানাউল হক পুনরায় বাদীর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন। টাকা না দেওয়ায় পণ্য সরবরাহ বন্ধ করে দেয়।

অভিযোগ থেকে আরো জানা যায়, এরপর গত বছরের ৩০ অক্টোবর বাদীর ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান কদমতলীর ঢাকা মেস নতুন কলোনিতে আসেন সানাউল হক ও এসআই নাজমুল।  ইমরান হোসেনকে অপহরণ করে শ্যামপুর ইকোপার্কে নিয়ে আটকে রেখে মাদক ও অস্ত্র দিয়ে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর ভয় দেখিয়ে তাঁর দোকানের চাবি চায়। পরে আসামিরা তাঁর মায়ের কাছ থেকে দোকানের চাবি নিয়ে ৭৫ হাজার টাকা মূল্যের আইসক্রিম, নগদ এক লাখ টাকা, ব্র্যাক ব্যাংকের চেক বই এবং দুটি ফ্রিজ  নিয়ে যায়। বাদীকে মেরে ফেলার হুমকি ও মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর ভয় দেখিয়ে তাঁর কাছ থেকে সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেয় আসামিরা। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা