kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭। ৭ আগস্ট  ২০২০। ১৬ জিলহজ ১৪৪১

‘জাল যার জলা তার’ নীতি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে : ভূমিমন্ত্রী

আরো ৪০ জলমহাল ইজারা প্রদান

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৭ জুলাই, ২০২০ ০০:১৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘জাল যার জলা তার’ নীতি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে : ভূমিমন্ত্রী

ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী এমপি। ফাইল ছবি

দেশের সরকারি জলমহালগুলো ইজারা প্রদানের ক্ষেত্রে ‘জাল যার জলা তার’ নীতি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী এমপি। এক্ষেত্রে জলমহাল নীতিমালা ২০০৯ শতভাগ পরিপালন করা হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

সোমবার ভূমি মন্ত্রণালয়ের ‘উন্নয়ন প্রকল্পে ২০ একরের ঊর্ধ্বে সরকারি জলমহাল ইজারা প্রদান’ সংক্রান্ত কমিটির ৬২তম সভায় সভাপতির বক্তব্যে মন্ত্রী একথা বলেন। দুপুর ১২টায় মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ সভার আয়োজন করা হয়।

সভায় দেশের সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা, কিশোরগঞ্জ, সিলেট, হবিগঞ্জ ও চাঁদপুর অঞ্চলের ২০ একরের ঊর্ধ্বে আরো ৪০টি সরকারি জলমহাল আগামী ৬ বছরের জন্য ইজারা দেওয়া হয়। এর আগে চলতি বছরে ১৪৯টি জলমহাল ইজারা দেয় সরকার।

সভার বিষয়ে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী এমপি কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘জাল যার, জল তার’-এই নীতিতে আমাদের জলমহাল ইজারা বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। প্রতিটি জলমহাল যেন সঠিক সময়ে ইজারা দেওয়া হয় এ বিষয়ে মাঠ পর্যায়ে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তবে ২০ একরের ওপরের জলমহালগুলো মন্ত্রণালয় থেকে বরাদ্দ দেওয়া হয়। সেই বিষয়েই সোমবার আমরা বৈঠকে বসি। 

মন্ত্রী জানান, দেশের প্রায় ২০০ জলমহাল নিয়ে মামলা আছে। এসব মামলা মোকাবেলায় কেন দেরি হচ্ছে, সরকার কেন সুফল পাচ্ছে না-সে বিষয়ে মন্ত্রণালয় থেকে জেলা প্রশাসনের কাজে বিসত্মারিত তথ্য চাওয়া হয়েছে।

সূত্রমতে, দেশের খাস জলাশয় ও জলমহালসমূহ প্রকৃত মৎস্যজীবীদের অনুকূলে বন্দোবস্ত প্রদানে অগ্রাধিকার দেওয়া এবং রাজস্ব আয়ের পাশাপাশি মৎস্য সম্পদ সংরক্ষণ ও উৎপাদন বৃদ্ধিসহ জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ করার লক্ষ্যে সরকার জনস্বার্থে ‘সরকারি জলমহাল ব্যবস্থাপনা নীতি, ২০০৯’ প্রণয়ন করেছে। এই নীতির আলোকে সংশ্লিষ্টদের আবেদনের প্রেক্ষিতে জলমহাল ইজারা দেওয়া হয়।

মন্ত্রণালয় সূত্রমতে, দেশে ২০ একর পর্যন্ত মোট জলমহাল আছে ২৩ হাজার ১৬২টি।  ২০ একরের ঊর্ধ্বে জলমহালের সংখ্যা ৩ হাজার ১১৩টি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা