kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৩ আষাঢ় ১৪২৭। ৭ জুলাই ২০২০। ১৫ জিলকদ  ১৪৪১

সকল আদালতে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সরঞ্জাম রাখার নির্দেশনা চেয়ে রিট

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ জুন, ২০২০ ১৮:০১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সকল আদালতে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সরঞ্জাম রাখার নির্দেশনা চেয়ে রিট

করোনাকালীন সময়ে বিচারক, আইনজীবী, আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সংশ্লিষ্টদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য দেশের সকল আদালত প্রাঙ্গণে থার্মাল স্ক্যানার স্থাপন, প্রতিটি আদালত কক্ষের সামনে রিমোট থার্মোমিটার, পর্যাপ্ত স্যানিটাইজার, সাবানসহ প্রয়োজনীয় উপকরণ সরবরাহের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন দাখিল করা হয়েছে। রিট আবেদনে সারা দেশে আদালত পরিচালনায় স্বাস্থ্যবিধি প্রণয়নের নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। 

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির পল্লব ও ব্যারিস্টার মোহাম্মদ কাওছার আজ বুধবার বিচারপতি জেবিএম হাসানের ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চের অনুমতি নিয়ে এই রিট আবেদনটি দাখিল করেন।

রিট আবেদনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব, আইন সচিব, সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, বাংলাদেশ বার কাউন্সিল সচিব, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদককে বিবাদি করা হয়েছে। 

এর আগে করোনাকালীন সময়ের জন্য দেশের প্রতিটি আদালতের প্রবেশ ও বাহির পথে জীবাণুনাশক উপকরণের ব্যবস্থা রাখতে গত ১৬ মে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের কাছে আবেদন করেন তারা। কিন্তু সে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় রিট আবেদন করা হলো বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

রিট আবেদনে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস ইতিমধ্যে সারা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। ইতিমধ্যে অসংখ্য আইনজীবী ও কোর্ট স্টাফ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, কেউ কেউ মারাও গিয়েছেন। বিচারকগণও এর থেকে মুক্ত নন। আগামী ১৫ জুন কোর্ট খুলে গেলে লাখ লাখ বিচারপ্রার্থী আদালত প্রাঙ্গণে উপস্থিত হবেন। ফলে দেশের কোর্ট প্রাঙ্গণই হয়ে যেতে পারে করোনার নতুন হট স্পট। আদালত প্রাঙ্গণ থেকে করোনা সারা দেশে প্রবল বেগে ছড়িয়ে পড়তে পারে। তাই আদালত খোলার আগেই দেশের সকল আদালত প্রাঙ্গণে থার্মাল স্ক্যানার স্থাপন, প্রতিটি আদাল কক্ষের সামনে রিমোট থার্মোমিটার, পর্যাপ্ত স্যানিটাইজার, সাবান এবং হাত ধোয়ার উপকরণ সরবরাহ করা প্রয়োজন। এছাড়াও সারাদেশে আদালত পরিচালনায় স্বাস্থ্যবিধি প্রণয়নের প্রয়োজন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা