kalerkantho

শুক্রবার । ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৫ জুন ২০২০। ১২ শাওয়াল ১৪৪১

দেশে ফের রেকর্ড পরিমাণ করোনা রোগী শনাক্ত

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ মে, ২০২০ ১৪:৫২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দেশে ফের রেকর্ড পরিমাণ করোনা রোগী শনাক্ত

বাংলাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আবারো করোনাভাইরাসে সংক্রমিত রোগী রেকর্ড পরিমাণ শনাক্ত হয়েছে। গতকাল শুক্রবারের চেয়ে আজ শনিবার ১৭৯ জন। আজ শনাক্ত হয়েছেন ১,৮৭৩ জন। গতকাল শনাক্ত হয়েছিলেন ১,৬৯৪ জন। এর আগের দিন বৃহস্পতিবার ১,৭৭৩ জন আর বুধবার ১,৬১৭ জন শনাক্ত হয়েছিলেন। 

এছাড়া গত মঙ্গলবার ১,২৫১ জন; গত সোমবার ১,৬০২ জন; গত রবিবার ১,২৭৩ জন; শনিবার ৯৩০ জন; গত শুক্রবার শনাক্ত হয়েছিলেন ১,২০২ জন। এ নিয়ে দেশে মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৩২,০৭৮ জন। 

আজ শনিবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে এ তথ্য জানানো হয়। অনলাইনে বুলেটিন উপস্থাপন করেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

অনলাইন বুলেটিনে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ১০,৮৩৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। একই সময়ে করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২০ জন। এনিয়ে মোট মারা গেলেন ৪৫২ জন। এছাড়া করোনা থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২৯৬ জন। এনিয়ে মোট সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৬,৪৮৬ জন।

গতকাল শুক্রবার পর্যন্ত নতুন করে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছিলেন ১,৬৯৪ জন। এর আগের দিন বৃহস্পতিবার ১,৭৭৩ জন আর বুধবার ১,৬১৭ জন শনাক্ত হয়েছিলেন। 

গতকাল শুক্রবার পর্যন্ত করোনাভাইরাস শনাক্তে নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছিল ৯,৭২৭টি। এরমধ্যে নতুন শনাক্ত হয়েছিলেন ১,৬৯৪ জন। মোট শনাক্ত হয়েছিলেন ৩০,২০৫ জন। আর গতকাল আরও ২৪ জন মারা যান। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছিল ৪৩২ জন। এছাড়া গতকাল সুস্থ হয়েছিলেন ৫৮৮ জন। এনিয়ে মোট সুস্থ হয়েছেন ৬,১৯০ জন।

আপনার সুস্থতা আপনার হাতে উল্লেখ করে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সকলকে স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে মেনে চলতে সকলের প্রতি আহবান জানানো হয়।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে সবাইকে ঘরে থাকা, রমজানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা, বেশি বেশি পানি ও তরল জাতীয় খাবার, ভিটামিন সি ও ডি সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া, ডিম, মাছ, মাংস, টাটকা ফলমূল ও সবজি খাওয়াসহ শরীরকে ফিট রাখতে নিয়মিত হালকা ব্যায়াম এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শ-নির্দেশনা মেনে চলার অনুরোধ জানানো হয়।

দেশে নভেল করোনাভাইরাসে (কভিড-১৯) সংক্রমিত প্রথম রোগী শনাক্ত হয় গত ৮ মার্চ। আর ১৮ মার্চ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা