kalerkantho

বুধবার । ৮ বৈশাখ ১৪২৮। ২১ এপ্রিল ২০২১। ৮ রমজান ১৪৪২

‘নারায়ণগঞ্জ, মিরপুর ও বাসাবোর করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক’

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ এপ্রিল, ২০২০ ১৪:৪৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘নারায়ণগঞ্জ, মিরপুর ও বাসাবোর করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক’

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) সংক্রমণে আরো তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। আর নতুন করে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে ৫৮ জনের দেহে। তাদের মধ্যে রাজধানী ঢাকার অধিবাসী ১৪ জন এবং নারায়ণগঞ্জের অধিবাসী আট জন। অন্যরা দেশের বিভিন্ন জেলার। এছাড়া নারায়ণগঞ্জ, মিরপুর ও বাসাবোর করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক বলে জানানো হয়।

আজ শনিবার দুপুর আড়াইটায় মহাখালীর ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (এমআইএস) বিভাগের মিলনায়তনে করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এসব তথ্য জানান। এতে যুক্ত হন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ এবং আইইডিসিআরের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

দেশে করোনায় আক্রান্তদের মধ্যে শতকরা ৫২ জন ঢাকার অধিবাসী বলে জানানো হয় বুলেটিনে।

বুলেটিনে নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাড়াও ঢাকার মিরপুর ও বাসাবোয় করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক বলে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা জানেন, করোনাভাইরাসটি বেশ কয়েকটি জায়গায় বিস্তার লাভ করেছে। তার মধ্যে সবচেয়ে বেশি নারায়ণগঞ্জ, মিরপুর এবং বাসাবোয়। ‘

তিনি বলেন, ‘আমাদের অন্যান্য জেলাতেও করোনা ছড়িয়ে গেছে। আমরা লক্ষ্য করেছি নারায়ণগঞ্জ জেলা থেকে বেশ কিছু লোক অন্যান্য জেলায় চলে গিয়েছে এবং সেখানে আক্রান্ত করেছে।’

তিনি বলেন, ‘এ বিষয়টি উদ্বেগজনক। এ বিষয়টিকে আমাদের আরো কঠিনভাবে দেখতে হবে এবং বন্ধ করতে হবে।’ 

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় তিনজন মৃতের মধ্যে দুজন ঢাকার বাইরের এবং একজন ঢাকার। গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৯৫৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, দেশে ভাইরাসটিতে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৮২ জনে। আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে মারা গেছেন আরও তিনজন। ফলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩০ জনে। এছাড়া সুস্থ হয়ে উঠেছেন আরও তিনজন, ফলে মোট সুস্থ হয়েছেন ৩৬ জন।

ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, সুস্থ হওয়ার তিনজনের মধ্যে দুজন পুরুষ এবং একজন নারী। তাদের বয়স যথাক্রমে ২৬, ৫৭ ও ৫৫ বছর।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা