kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২ জুন ২০২০। ৯ শাওয়াল ১৪৪১

ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী

'একজন ছাত্র কেন মারা গেল? রোগী আসলে চিকিৎসা করতে হবে'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ এপ্রিল, ২০২০ ১০:৪৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'একজন ছাত্র কেন মারা গেল? রোগী আসলে চিকিৎসা করতে হবে'

ফাইল ফটো

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় চলমান কার্যক্রম সমন্বয়ের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রাম ও সিলেটের জেলাগুলোর কর্মকর্তাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়েছিলেন। এ সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রের চিকিৎসায় অবহেলা প্রসঙ্গেও কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। চিকিৎসকদের জন্য নানা সুবিধা প্রদানের বিষয়টি উল্লেখ করে জানান, রোগী আসলে চিকিৎসা করতে হবে।

আজ মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) সকাল ১০টায় গণভবন থেকে এ ভিডিও কনফারেন্স শুরু করেন প্রধানমন্ত্রী। ভিডিও বার্তায় কর্মকর্তাদের বিশেষ নির্দেশনা দেন তিনি।

করোনা সন্দেহে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্র চিকিৎসা না পেয়ে মারা যাওয়া প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী চিকিৎসকদের অবহেলার কথা উল্লেখ করে প্রশ্ন তোলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র চিকিৎসা না পেয়ে কেন মারা যাবে?

যেসব ডাক্তারের বিরুদ্ধে করোনা পরিস্থিতিতে চিকিৎসায় অবহেলার অভিযোগ উঠবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানান প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘একজন রোগী এলে চিকিৎসা করাবে তার জন্য নিজেকে সুরক্ষিত করা যায়। এপ্রোন পরে নেন মুখে মাস্ক লাগান, গ্লাভস নেন, স্যানিটাইজার ব্যবহার করেন, হাত ধুয়ে রোগী দেখেন। রোগী কেন ফেরত যাবে। আর একজন রোগী নিয়ে দৌড়াদৌড়ি করে সে রোগী কেন মারা যাবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্র কেন মারা যাবে। এই রোগী কোনো কোনো জায়গা গিয়েছে সেখানে কোনো কোনো চিকিৎসকের দায়িত্ব ছিল আমি তাদের নামটাও জানতে চাই। কারণ ডাক্তারি করার মতো, চাকরি করবার মতো তাদের সক্ষমতা নেই। তাদের চাকরি থেকে বের করে দেওয়া উচিত। আমি মনে করি।’

তিনি বলেন, ‘বরং ভবিষ্যতে তারা ডাক্তারি করতে পারবে কি-না সেটাই চিন্তা করতে হবে। ডাক্তার আমাদের প্রয়োজন আছে এটা নিয়ে আমাদের কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু এই মানসিকতা থাকবে কেন, মানবতা বোধ হারাবে কেন।’

এ সময় করোনাভাইরাস মোকাবিলায় অর্থনৈতিক গতিশীলতা ধরে রাখার চেষ্টা করতে হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানান, আক্রান্তদের সেবা দিতে গিয়ে যদি চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন তাহলে পদমর্যাদা অনুযায়ী তাদের ৫ থেকে ১০ লাখ টাকা দেওয়া হবে এবং আল্লাহ না করুক কেউ মারা গেলে তার ৫ গুণ অর্থ সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা কথাও জানান তিনি। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা