kalerkantho

শনিবার । ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৬ জুন ২০২০। ১৩ শাওয়াল ১৪৪১

বাংলাদেশে করোনাভাইরাস থেকে মুক্ত হওয়া ফয়সাল যা বললেন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩১ মার্চ, ২০২০ ২০:৩৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাংলাদেশে করোনাভাইরাস থেকে মুক্ত হওয়া ফয়সাল যা বললেন

বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাস থেকে মুক্ত হওয়া জার্মানিফেরত ফয়সাল শেখ বলেছেন, করোনাভাইরাসের সবচেয়ে বড় ব্যাপার বাসায় থাকা, ঘরে থাকা। যতদিন ঘরে থাকতে বলা হয়েছে ততদিন ঘরে থাকুন। তাহলে আমরা সবাই নিরাপদ থাকতে পারবো। এর সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে পারবো।

আজ মঙ্গলবার করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দেশব্যাপী চলমান কার্যক্রম সমন্বয়ের লক্ষ্যে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে ৬৪ জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলেন ফয়সাল।

ফয়সাল শেখ ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় থেকে ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলেন।

ফয়সাল প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, আমি জার্মানিতে পড়াশোনা করছি। ১ তারিখ ছুটি কাটানোর জন্য দেশে আসি। ১০ দিন পর আমার খুব খারাপ লাগে। শরীরে করোনা লক্ষণ দেখা দেয়। 

তিনি বলেন, আমার পরিবার ও সবার নিরাপত্তার জন্য আমি নিজে আইইডিসিআর যাই টেস্ট করানোর জন্য। টেস্ট করার পর তারা আমাকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করেন। একদিন পর জানায় পজিটিভ এসেছে।

ফয়সাল শেখ বলেন, আইইডিসিআর আমাকে কোয়ারেন্টিনে রাখতে চাইলে রাজি হই। কুয়েত মৈত্রী হসপিটালে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়। সেখানে আমি ১০ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকি। আমার বন্ধু-বান্ধব, পরিবারের যাদের সঙ্গে দেখা হয়েছিল তাদের সবাইকে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছিল। ১০ দিন পর বারবার টেস্ট করার পর নেগেটিভ আসে। এরপর আমি আমার পরিবারের কাছে ফিরে যাই।

তিনি বলেন, দেশের মানুষের কাছে একটাই অনুরোধ- করোনাভাইরাসের সবচেয়ে বড় ব্যাপার বাসায় থাকা, ঘরে থাকা। যতদিন ঘরে থাকতে বলা হয়েছে ততদিন ঘরে থাকুন। তাহলে আমরা সবাই নিরাপদ থাকতে পারবো। এর সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে পারবো।

সুস্থ হয়ে ফিরে আসতে পারায় প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকদের নেওয়া ব্যবস্থার প্রশংসা করেন এবং সবাইকে ধন্যবাদ জানান ফয়সাল শেখ।

করোনা ভাইরাস থেকে সুস্থ হওয়া ফয়সালকে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা খুব খুশি তুমি সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরে গেছ। মায়ের সন্তান মায়ের কোলে ফিরে গেছে।

ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার মো. মোস্তাফিজুর রহমান জানান ফয়সাল শেখ ঢাকায় করোনা শনাক্ত হওয়া প্রথম করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগী ছিলেন।

এসময় ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা