kalerkantho

শনিবার । ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৬ জুন ২০২০। ১৩ শাওয়াল ১৪৪১

সড়কে টহল বাড়িয়েছে পুলিশ, ঘরে ফেরাচ্ছে মানুষকে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩১ মার্চ, ২০২০ ২০:৩১ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সড়কে টহল বাড়িয়েছে পুলিশ, ঘরে ফেরাচ্ছে মানুষকে

করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে সড়কে টহল বাড়িয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। ঘর ছেড়ে প্রয়োজন ছাড়া রাস্তায় মানুষের উপস্থিতি বাড়ায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

আজ মঙ্গলবার সরেজমিনে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, যেসব সড়কে গত কয়েকদিনে পুলিশের টহল ও চেকপোস্ট কম ছিল না সেসব সড়কেও পুলিশের কর্মকাণ্ড বাড়ানো হয়েছে। মঙ্গলবার বিকালে রামপুরা থেকে বাড্ডা এলাকার সড়কগুলোতে পুলিশের সাতটি চেকপোস্ট চোখে পড়ে।

টহলে থাকা পুলিশের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ সবার ঘরে অবস্থান নিশ্চিত করতে রাজধানীর প্রতিটি মোড়ে ও সড়কে টহল দিচ্ছে পুলিশ। সেই সঙ্গে চেকপোস্টে চলছে তল্লাশি। প্রাইভেটকার, মোটরসাইকেল, ‘সিএনজি চালিত অটোরিকশা সামনে পেলেই দাড় করিয়ে যাত্রী ও চালককে বলা হচ্ছে, ‘নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে আপনারা বাইরে বের হয়েছেন কেন। অপনারা ঘরে ফিরে যান।’ এভাবে যারাই বাইরে বের হচ্ছেন তাদেরকেই প্রশ্নের মুখে পড়তে হচ্ছে।

গত বৃহস্পতিবার থেকে আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারি-বেসরকারি সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। মঙ্গলবার ছুটি বাড়িয়ে ৯ এপ্রিল পর্যন্ত করা হয়েছে। এর সঙ্গে শুক্র ও শনি ছুটি মিলিয়ে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত টানা ছুটি থাকবে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া এ সময়ের মধ্যে সবাইকে ঘরে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে এর মধ্যেই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে অনেকেই বাইরে বের হয়ে ঘোরাঘুরি করছে। ডিএমপি মিডিয়া এ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের ডিসি মাসুদুর রহমান বলেন, নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে যারা প্রয়োজন ছাড়া বাইরে থাকছে তাদেরকে বুঝিয়ে ঘরে ফেড়াচ্ছে পুলিশ। 

এদিকে করোনাভাইরাস থেকে রাজধানীবাসীর স্বাস্থ্য সুরায় জীবাণুনাশক ওষুধ ছিটানো অব্যাহত রেখেছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। মঙ্গলবার সপ্তম দিনের মতো রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে জীবাণুনাশক ওষুধ ছিটিয়েছে ডিএমপি।

সূত্র জানায়, ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলামের নির্দেশনায় গত বুধবার থেকে নগরবাসীর স্বাস্থ্য সুরায় ও করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে প্রতিদিন দুইবার করে ওয়াটার ক্যানন দিয়ে ঢাকা মহানগর এলাকায় জীবাণুনাশক ওষুধ ছিটানো হচ্ছে। ডিএমপির আটটি ওয়াটার ক্যানন আট ক্রাইম বিভাগের (রমনা, তেজগাঁও, লালবাগ, ওয়ারী, মিরপুর, গুলশান, উত্তরা ও মতিঝিল) বিভিন্ন স্থানে প্রথমে সকাল ১০টা থেকে ১২টা পর্যন্ত জীবাণুনাশক ওষুধ ছিটানো শুরু হয়। পরে দ্বিতীয় দফায় বিকেল ৪টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত জীবাণুনাশক ওষুধ ছিটানো হচ্ছে। জীবাণুনাশক ছিটানোর কার্যক্রম চলমান থাকবে বলে ডিএমপি সূত্রে জানা গেছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা