kalerkantho

বুধবার  । ১৮ চৈত্র ১৪২৬। ১ এপ্রিল ২০২০। ৬ শাবান ১৪৪১

রাজনৈতিক বক্তব্য দিলে সিদ্ধান্ত বাতিল করতে পারবে সরকার: অ্যাটর্নি জেনারেল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৫ মার্চ, ২০২০ ১৯:০১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাজনৈতিক বক্তব্য দিলে সিদ্ধান্ত বাতিল করতে পারবে সরকার: অ্যাটর্নি জেনারেল

ফাই ছবি

বিএনপি চেয়ারপারসন সাবকে প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, তিনি(খালেদা জিয়া) যদি কোনো রাজনৈতিক বক্তব্য দেন বা রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অংশ নেন তবে তার মুক্তির শর্ত ভঙ্গ হবে। তার শর্ত ভঙ্গ করলেই সরকার যেকোনো সময় তার মুক্তির সিদ্ধান্ত বাতিল করতে পারবে। আর যদি শর্ত ভঙ্গ না করেন এবং সরকার তার মুক্তির মেয়াদ না বাড়ায় তবে তিনি ছয়মাস পর আগের অবস্থায় ফিরে যাবেন। বুধবার নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। 

তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য যে আবেদন করা হয়েছে তাতে বলা হয়েছে, তার শারীরীক অবস্থা ভয়ানক খারাপ। এই প্রেক্ষাপটে আমার অভিমত হলো তার শারীরীক অবস্থা বিবেচনা করেই সরকার সাজা স্থগিত করে মুক্তি দিয়েছে। তিনি বলেন, সরকার পারিপার্শ্বিক অবস্থা বিবেচনা করেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মনে রাখতে হবে, এটা এখনকার আইনে নয়, সেই ব্রিটিশ আমলের আইনেই এই বিধান রয়েছে। ব্রিটিশ সরকার ও পাকিস্তান সরকারও এই বিধান প্রয়োগ হয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ সরকারও এটা প্রয়োগ করেছে।

এই মুক্তির কারণে এমন কিছু ভাবার সুযোগ আছে কীনা যে আদালতের চেয়ে সরকারের ক্ষমতা বেশি-এই প্রশ্নের জবাবে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, এটা ভাবা ভুল হবে। আর একটা জিনিস মনে রাখবেন, খালেদা জিয়া কিন্তু জামিনে মুক্তি পাননি। সরকার তাকে জামিন দেয়নি। তাকে ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১ ধারার ক্ষমতাবলে সরকার সাময়িক সময়ের জন্য শর্তসাপেক্ষে ছয়মাসের জন্য মুক্তি দিয়েছে। আইন অনুযায়ীই সরকার এই করেছে। বর্তমান সরকার সেটা প্রয়োগ করেছে মাত্র।

তিনি বলেন, দুটি মামলায় খালেদা জিয়ার ১৭ বছরের কারাদণ্ড হয়েছে। তার অপরাধের গুরুত্ব বিবেচনায় আদালত তাকে জামিন দেয়নি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা