kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৬ চৈত্র ১৪২৬। ৯ এপ্রিল ২০২০। ১৪ শাবান ১৪৪১

চাকরি হারালেন ঢাবির পাঁচ শিক্ষক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০৩:১৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চাকরি হারালেন ঢাবির পাঁচ শিক্ষক

শিক্ষা ছুটি নিয়ে বিদেশ গিয়ে ফিরে না আসায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঁচ শিক্ষককে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ নীতি-নির্ধারণী ফোরাম সিণ্ডিকেট সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সভায় উপস্থিত একাধিক সিণ্ডিকেট সদস্য কালের কণ্ঠকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

চাকরিচ্যুত শিক্ষকরা হলেন, শিক্ষা ছুটি শেষ করার পর কাজে যোগদান না করায় পপুলেশন সায়েন্সস বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. কামরুল ইসলাম, পরিসংখ্যান গবেষণা ও শিক্ষণ ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক মিসেস ইয়াসমিন আকতার ও মো. মহসীন, পরিসংখ্যান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মিসেস রাদিয়া তাইসিরকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও নিজ আবেদনের প্রেক্ষিতে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক মো. আজমেরী ফেরদৌসকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। 

সভা সূত্রে জানা যায়, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় না যাওয়ার সিদ্ধান্ত অনুমোদন পায়। একইসঙ্গে আগামী পাঁচ সপ্তাহ সান্ধ্য কোর্সের ভর্তির কার্যক্রম স্থগিতের সিদ্ধান্ত পাস হয়। সান্ধ্য কোর্স বন্ধে ১৫ সদস্যের একটা নীতিমালা প্রণয়ন কমিটি গঠন করা হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক নাসরীন আহমাদকে প্রধান করে এই কমিটি গঠন করা হয়েছে। পনেরো সদস্যের এই কমিটিতে উপ-উপাচার্য (প্রশাসন), কোষাধ্যক্ষ, দশ অনুষদের ডিন, ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউট, শিক্ষা ও গবেষণা ইন্সটিটিউটের পরিচালককে সদস্য করা হয়েছে। আগামী পাঁচ সপ্তাহের মধ্যে কমিটিকে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। 

সভা সূত্রে জানা যায়, অনুজীব বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক পদে নিয়োগের সুপারিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠায় ফের সুপারিশ রিভিউয়ের জন্য পাঠানো হয়েছে। বিভাগটিতে তিনজন প্রভাষকের নিয়োগের প্রক্রিয়া চলমান। তবে নিয়োগের মৌখিক পরীক্ষায় ফার্স্ট ক্লাস ফার্স্ট হওয়া একজনকে দশম স্থান হওয়া একজনকে নিয়োগ দেওয়ায় এই অভিযোগ উঠে।

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান কালের কণ্ঠকে বলেন, একাডেমিক কাউন্সিলের সভার সিদ্ধান্তগুলো সিণ্ডিকেট সভায় অনুমোদন পেয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন বিভাগের পাঁচ শিক্ষককে ছুটি নিয়ে বিদেশ গিয়ে ফিরে না আসায় চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। একইসঙ্গে অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের একটা নিয়োগ প্রক্রিয়া রিভিওয়ের জন্য পাঠানো হয়েছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা