kalerkantho

সোমবার  । ১৬ চৈত্র ১৪২৬। ৩০ মার্চ ২০২০। ৪ শাবান ১৪৪১

মিলবে চিকিৎসাসেবা, খরচ দুই টাকা!

আরিফুর রহমান    

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১২:০৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মিলবে চিকিৎসাসেবা, খরচ দুই টাকা!

বর্তমান বাজারে দুই টাকা দিয়ে কী পাওয়া যাবে? এমন প্রশ্নের উত্তরে আপনি হয়তো বলবেন, দুই টাকায় সর্বোচ্চ একটা লজেন্স কিংবা একটা দিয়াশলাই মিলতে পারে। গত ১০ বছরে দেশের আর্থ-সামাজিক অবস্থা উন্নয়নের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে জীবনযাত্রার ব্যয় যে হারে বেড়েছে, তাতে দুই টাকায় এখন এক কাপ চা-ও মেলে না। যদি বলা হয়, দুই টাকায় চিকিৎসাসেবা মিলছে! এমন তথ্য শুনে বিস্মিত হবে অনেকে। দেশের চিকিৎসা ব্যয় যেখানে হু হু করে বাড়ছে, সেখানে দুই টাকায় কী ধরনের সেবা পাওয়া যাবে? কিংবা কারা চিকিৎসা দেন এবং কারা চিকিৎসা নেয় তা নিয়ে নিশ্চয়ই কৌতূহল তৈরি হবে।

রাজধানীর উত্তরায় কার্ডিও কেয়ার হাসপাতালে সপ্তাহের একটি দিন মেলে দুই টাকার চিকিৎসাসেবা। পারি ফাউন্ডেশন নামের একটি অলাভজনক ও স্বেচ্ছাসেবক প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে প্রতি শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত চিকিৎসাসেবা দেওয়া হয়ে থাকে।

দুই টাকায় চিকিৎসাসেবা মেলে এমন খবর শুনে উত্তরায় কার্ডিও কেয়ার হাসপাতালে ভিড় বাড়ছে। উত্তরার টেগপাড়া, দিয়াবাড়ীসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে বিশেষ করে শুক্রবার রোগী আসে কার্ডিও কেয়ার হাসপাতালে। এলার্জি, শ্বাসকষ্ট, উচ্চ রক্তচাপ, গর্ভকালীন সমস্যা, অ্যাজমা, ডায়াবেটিসসহ বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা দেওয়া হয় সেখানে। চিকিৎসার পাশপাশি রোগীদের ওষুধও সরবরাহ করা হয় আয়োজকদের পক্ষ থেকে।

দুই টাকায় চিকিৎসাসেবার খবর শুনে সম্প্রতি এক শুক্রবার রাজধানীর উত্তরায় কার্ডিও কেয়ার হাসপাতালে সরেজমিন গিয়ে দেখা গেল, অর্ধশতাধিক সুবিধাবঞ্চিত মানুষ ডাক্তারের জন্য অপেক্ষা করছেন। এক এক করে রোগী দেখছেন ডাক্তার। ডাক্তার দেখানোর পর রোগীদের ওষুধও দেওয়া হচ্ছে। উত্তরার ফুলবাড়িয়া বস্তিতে থাকেন পারুল আক্তার। কোমরব্যথায় ভুগছেন দীর্ঘদিন ধরে। টাকার অভাবে ডাক্তার দেখাতে পারছেন না। দুই টাকায় চিকিৎসাসেবার কথা শুনে চলে এসেছেন কার্ডিও কেয়ার হাসপাতালে। একই এলাকার সন্তানসম্ভাবনা মোর্শেদা আক্তার। ডাক্তারের ভিজিট দুই টাকা আর আল্ট্রাসনোগ্রামে রাখা হয় ১০ টাকা। মাত্র ১২ টাকায় চিকিৎসাসেবা পেয়ে খুশি মোর্শেদা।

দুই টাকায় চিকিৎসাসেবার ধারণাটি কিভাবে এলো জানতে চাইলে পারি ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আবুল তালেব কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘উত্তরা এলাকায় আমিসহ আরো কয়েকজন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী যারা বিভিন্ন পেশায় সম্পৃক্ত আমরা একসঙ্গে হলাম, উদ্দেশ্য মানুষের সেবা। তারপর এই পথচলা।’

উদ্যোক্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, ২০১৮ সালের ২৬শে মার্চ স্বাধীনতা দিবসের দিন উত্তরার ১২ নম্বর সেক্টরে পাইলট আকারে তাঁদের স্বাস্থ্য ক্যাম্পের কার্যক্রম শুরু হয়। পারি ফাউন্ডেশনের কার্যনির্বাহী পদে আছেন ডা. ফয়সাল আহমেদ, যিনি এনাম মেডিক্যাল কলেজ থেকে পড়াশোনা করে এখন ফেয়ার লাইফ মাদকাসক্ত নিরাময় কেন্দ্রে কর্মরত। ডা. ফয়সাল আহমেদ বলেন, ‘প্রতীকী মূল্যে আমরা চিকিৎসাসেবা দিয়ে থাকি।’ ওষুধ কোত্থেকে আসে, এমন প্রশ্নে ডা. ফয়সাল আহমেদ জানান, স্কয়ার, ইনসেপ্টা, হেলথ কেয়ার থেকে বিনা পয়সায় ওষুধ পাওয়া যায়। সেই ওষুধ রোগীদের বিনা মূল্যে সরবরাহ করা হয়। ডা. ফয়সাল বলেন, ‘আমাদের এখানে ডাক্তার ফ্রি, ওষুধ ফ্রি। কার্ডিও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সপ্তাহের এক দিন আমাদের একটি ফ্লোর ফ্রি দিচ্ছে। দুই টাকায় চিকিৎসাসেবার সঙ্গে আছেন বিভিন্ন নামকরা হাসপাতালের ডাক্তাররা। এর মধ্যে এনাম মেডিক্যালের সার্জারি বিভাগের অধ্যাপক ডা. দেব প্রসাদ পাল, ডা. হোসাইন রেহনুমা তারান্নুম সৃষ্টি, ডা. আবুল খায়ের ভুঁইয়া, ডা. ফয়সাল আহমেদসহ অনেকে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা