kalerkantho

রবিবার  । ১৫ চৈত্র ১৪২৬। ২৯ মার্চ ২০২০। ৩ শাবান ১৪৪১

সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটিকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৭:৩৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটিকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা

সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটিকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন আপিল বিভাগ। বাংলাদেশ বার কাউন্সিল ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে আইন বিভাগে প্রতি সেমিস্টারে ৫০ জনের বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি করায় এই জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানার টাকা বার কাউন্সিলে জমা দিতে বিশ্ববিদ্যালয়টির ট্রাস্টি চেয়ারম্যান মো. রেজাউল করিম এবং উপাচার্য অধ্যাপক আনোয়ার হোসেনকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে এই জরিমানার টাকা কোনোভাবেই যেন শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আদায় করা না হয় সেজন্য তাদের সতর্ক করা হয়েছে। 

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগ আজ বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন। বিশ্ববিদ্যালয়টির ট্রাস্টি চেয়ারম্যান ও ভিসির উপস্থিতিতে দেশের সর্বোচ্চ আদালত এ আদেশ দেন। 

আদালত বলেছেন, টাকা জমা দেওয়ার রশিদ দেখালে সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগের ৮৬ শিক্ষার্থীকে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি বার কাউন্সিল পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সুযোগ দেওয়া হবে। হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে বার কাউন্সিলের করা আবেদনের ওপর শুনানি শেষে এ আদেশ দেওয়া হয়। বার কাউন্সিলের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট এ ওয়াই মশিউজ্জামান ও এসএম কফিল উদ্দিন। সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটির পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট আশিক আল জলিল। 

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ৫০ জনের অতিরিক্ত শিক্ষার্থী ভর্তি করে সিটি ইউনিভার্সিটি। এ অবস্থায় বার কাউন্সিল ৫০ জনের বেশি নিতে রাজি হয়নি বার কাউন্সিল। এ অবস্থায় সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটির ৮৭ শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সুযোগ চেয়ে বার কাউন্সিলে আবেদন করে। কিন্তু বার কাউন্সিল অনুমতি না দেওয়ায় তারা হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন। এ রিট আবেদনে হাইকোর্ট ওইসব শিক্ষার্থীকে আইনজীবী তালিকাভুক্তির পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য রেজিস্ট্রেশন ও ফরম পূরণের সুযোগ দিতে বার কাউন্সিলকে নির্দেশ দেন। এ আদেশের বিরুদ্ধে বার কাউন্সিল আপিল করে। এ আপিল আবেদনের ওপর শুনানিকালে আপিল বিভাগ সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটির ভিসি ও ট্রাস্টি চেয়ারম্যানকে তলব করেন। এ আদেশে গতকাল সকালে ভিসি আদালতে হাজির হন। 

এদিকে চট্টগ্রামের ইন্টারনেশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটি ও সিলেটের মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির উপাচার্যকে তলব করেছেন আপিল বিভাগ। আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারি তাদের হাজির হতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ দুই ইউনিভার্সিটির পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন ও সগির হোসেন লিয়ন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা