kalerkantho

বুধবার । ৬ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪১

কুর্মিটোলায় ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ

মজনুর বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ২৩ ফেব্রুয়ারি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৮ জানুয়ারি, ২০২০ ১২:৩৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মজনুর বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ২৩ ফেব্রুয়ারি

ফাইল ছবি।

রাজধানীর কুর্মিটোলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় গ্রেপ্তার আসামি মজনুর বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেছেন আদালত। ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আবু সাঈদ আজ মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি) এ দিন ধার্য করেন।

এর আগে ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণের ওই ঘটনায় গত ৭ জানুয়ারি মামলার এজাহার গ্রহণ করেন আদালত। আজ মঙ্গলবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালত ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ২৮ জানুয়ারি দিন ধার্য করেন।

গত ৫ জানুয়ারি বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে রওনা দেন ওই ছাত্রী। সন্ধ্যা ৭টার দিকে তিনি রাজধানীর কুর্মিটোলা বাসস্ট্যান্ডে বাস থেকে নামেন। এরপর একজন অজ্ঞাত ব্যক্তি তার মুখ চেপে ধরে সড়কের পেছনে নির্জন স্থানে নিয়ে যায়। সেখানে ধর্ষণের পাশাপাশি তাকে নির্যাতনও করা হয়। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ক্ষত চিহ্ন রয়েছে। ধর্ষণের এক পর্যায়ে তিনি অজ্ঞান হয়ে পড়েন।

ওইদিন রাত ১০টার দিকে নিজেকে একটি নির্জন জায়গায় আবিষ্কার করেন ওই ছাত্রী। পরে সিএনজি নিয়ে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে আসেন। রাত ১২টার দিকে ওই ছাত্রীকে ঢামেক হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করান তার সহপাঠীরা।

ওইদিন রাতেই ধর্ষিত ওই ছাত্রীর বাবা ক্যান্টনমেন্ট থানায় মামলা দায়ের করেন। প্রাথমিক তদন্ত ও অভিযোগ যাচাই-বাছাই শেষে রাতেই নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯(১) ধারায় মামলাটি তালিকাভুক্ত করে থানা কর্তৃপক্ষ।

ঘটনার তিন দিন পর মজনুকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। মামলার তদন্তভার পায় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। গ্রেপ্তারের পর মজনুকে ডিবি সাত দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে। আদালতে ধর্ষণে সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দেয় সে।

মজনুর ডিএনএ পরীক্ষায় ধর্ষণের প্রমাণ মেলে বলে জানায় সিআইডি সূত্র। সিআইডির ফরেনসিক ল্যাবে এই পরীক্ষা করা হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা