kalerkantho

শনিবার । ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ৪ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

বাংলাদেশের সঙ্গে বিশেষ সম্পর্ক সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার : ভারতের রাষ্ট্রপতি

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

২১ জানুয়ারি, ২০২০ ২০:৪৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বাংলাদেশের সঙ্গে বিশেষ সম্পর্ক সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার : ভারতের রাষ্ট্রপতি

বাংলাদেশের সঙ্গে বিশেষ সম্পর্ক এবং এই সম্পর্ক আরো জোরদারে ভারতের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকারের কথা জানিয়েছেন ভারতীয় রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। ভারতে বাংলাদেশের নতুন হাইকমিশনার মুহাম্মদ ইমরান আজ মঙ্গলবার নয়াদিল্লিতে রাষ্ট্রপতি ভবনে আনুষ্ঠানিকভাবে পরিচয়পত্র পেশকালে ভারতের রাষ্ট্রপতি এ কথা জানান। 

পরিচয়পত্র পেশ অনুষ্ঠানে হাইকমিশনার মুহাম্মদ ইমরানের স্ত্রী ড. জাকিয়া হাসনাত ইমরান ও বাংলাদেশ মিশনের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 

উল্লেখ্য, হাইকমিশনার মুহাম্মদ ইমরান নয়াদিল্লিতে হাইকমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলীর স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন। সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী ভারতে বাংলাদেশের হাইকমিশনার হিসেবে পাঁচ বছর দায়িত্ব পালন শেষে গত ডিসেম্বর মাসে দেশে ফিরেন এবং এর কয়েক দিনের মধ্যে তিনি মারা যান।

বাংলাদেশের নতুন হাইকমিশনারকে স্বাগত জানিয়ে ভারতের রাষ্ট্রপতি বলেন, ভারত বাংলাদেশে আরো আর্থ-সামাজিক অগ্রগতি দেখতে চায়। তিনি বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের বিশেষ সম্পর্ক আছে। এই সম্পর্ক আরো জোরদার করাকে ভারত সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিচ্ছে। 

ভারতের রাষ্ট্রপতি নিরাপত্তা, কানেক্টিখিটি ও মানুষে মানুষে যোগাযোগসহ সব ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে জোরালো ও গভীর সম্পর্ক দেখার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সুবর্ণ জয়ন্তী এবং ভারতের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার ৫০ বছর উদযাপনে ভারত বাংলাদেশের অংশীদার হতে পেরে আনন্দিত। 

ভারতের রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশের প্রয়াত সাবেক হাইকমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলীকে স্মরণ করেন। তিনি সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলীকে ভারতের ভালো বন্ধু ও বাংলাদেশের প্রকৃত দেশপ্রেমিক হিসেবে উল্লেখ করেন। 

ভারতের রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতিকে তাঁর শুভেচ্ছা জানান। বাংলাদেশের হাইকমিশনারও ভারতের রাষ্ট্রপতিকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা পৌঁছে দেন। তিনি বলেন, ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে সর্বাত্নক সহযোগিতার জন্য বাংলাদেশ ভারতের জনগণ ও সরকারের কাছে কৃতজ্ঞ। 

হাইকমিশনার বলেন, ১৯৭১ সালের রণাঙ্গণে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে যে সহযোগিতা শুরু হয়েছিল তা এখন ব্যতিক্রমী পর্যায়ে পৌঁছেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দূরদর্শী নেতৃত্বে এই সম্পর্ককে ‘সেরা’ এবং ‘প্রতিবেশীসুলভ সম্পর্কের’ মডেল হিসেবে অভিহিত করা হয়। 

বাংলাদেশের নতুন হাইকমিশনার ভারতের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরো সুসংহত ও সম্প্রসারণের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লক্ষ্য বাস্তবায়নে নিরলসভাবে কাজ করবেন বলে ভারতের রাষ্ট্রপতিকে আশ্বাস দিয়েছেন। তিনি উভয় দেশের জন্য লাভজনক নিরাপত্তা, পারস্পরিক আস্থা ও বিশ্বাস, কানেক্টিভিটিকে উত্সাহিতকরণ ও অর্থনৈতিক সহযোগিতা গুরুত্ব দিয়ে আঞ্চলিক ও উপআঞ্চলিক সহযোগিতাকে আরো এগিয়ে নিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিরলস চেষ্টার কথা তুলে ধরেন। 

বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উদযাপনকে ঘিরে ‘মুজিব বর্ষ’ পালনের কথা ভারতের রাষ্ট্রপতিকে জানান হাইকমিশনার মুহাম্মদ ইমরান। তিনি বলেন, আগামী ১৭ মার্চ ঢাকায় মুজিব বর্ষের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে নরেন্দ্র মোদিসহ ভারতের নেতাদের উপস্থিতির প্রত্যাশা করছে বাংলাদেশ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা