kalerkantho

বুধবার । ৬ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪১

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

ভোলায় ২৯ সহকারী শিক্ষক পদ সংরক্ষণে হাইকোর্টের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ জানুয়ারি, ২০২০ ১৯:৪০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভোলায় ২৯ সহকারী শিক্ষক পদ সংরক্ষণে হাইকোর্টের নির্দেশ

ভোলায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২৯টি সহকারী শিক্ষক পদ সংরক্ষণের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক পদে মহিলা কোটায় শতকরা ৬০ ভাগ নিয়োগ দিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করা হয়েছে। 

বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ সোমবার এ আদেশ দেন। আদেশে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সহ চারজনকে আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার আকলিমা বেগম, সুমনা দেবনাথ পূজা, নাসরিন আক্তার, আকলিমা বেগমসহ ২৯ জনের করা এক রিট আবেদনে এ আদেশ দেওয়া হয়। রিট আবেদনকারীপক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ছিদ্দিক উল্লাহ মিয়া, মো. মনিরুল ইসলাম রাহুল ও সোহরাওয়ার্দী সাদ্দাম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ছিদ্দিক উল্লাহ মিয়া সাংবাদিকদের বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা-২০১৩ এর ৭ ধারা অনুযায়ী সরাসরি নিয়োগযোগ্য পদে ষাট শতাংশ মহিলা প্রার্থী দিয়ে পূরণ করতে হবে। কিন্তু ২৪ ডিসেম্বর ঘোষিত ফলাফলে সেটা অনুসরণ করা হয়নি। ভোলা জেলায় সর্বমোট ৩৪৪ প্রার্থীকে চূড়ান্ত করা হয়। এর মধ্যে ১২৭ জন মহিলা ও ২১৭ জন পুরুষ প্রার্থী। এই হিসেবে আইন অনুযায়ী ৬০ শতাংশ হারে মহিলা প্রার্থী উত্তীর্ণ করা হলে তার সংখ্যা হবার কথা ২০৬ জন। নিয়োগ বঞ্চিত হওয়ায় ভোলা জেলার ২৯ জন প্রার্থী নিয়োগের নির্দেশনা চেয়ে রিট আবেদন করেছেন।

সারা দেশে সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগের মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ১৮ হাজার একশ ৪৭ জন প্রার্থীকে নিয়োগের জন্য চূড়ান্তভাবে নির্বাচন করে গত ২৪ ডিসেম্বর প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় ফল প্রকাশ করে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা