kalerkantho

শনিবার । ৯ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৭ জমাদিউস সানি ১৪৪১

'দ্বিদলীয় ধারার বিপরীতে বিকল্প শক্তির উত্থান প্রয়োজন'

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ জানুয়ারি, ২০২০ ১৭:১৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



'দ্বিদলীয় ধারার বিপরীতে বিকল্প শক্তির উত্থান প্রয়োজন'

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেছেন, দ্বিদলীয় ধারার বিপরীতে বাম বিকল্প শক্তির উত্থান প্রয়োজন। সিপিবি সেই লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে। বিকল্প শক্তির ক্ষমতাগ্রহণের মধ্য দিয়ে শহীদদের প্রতি পরিপূর্ণ শ্রদ্ধা নিবেদন সম্ভব হবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

পল্টনে সিপিবির মহাসমাবেশে বোমা হত্যাকাণ্ডের ১৯তম বার্ষিকীতে শহীদদের স্মরণে পুরানা পল্টনস্থ মুক্তিভবনের সামনের অস্থায়ী বেদীতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় আরো বক্তৃতা করেন সিপিবির উপদেষ্টা মনজুরুল আহসান খান, ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, বাসদ সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, সিপিবি সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম, শ্রমিক নেতা শহীদুল্লাহ চৌধুরী, বাম গণতান্ত্রিক জোটের ভারপ্রাপ্ত সমন্বয়ক কাজী সাজ্জাদ জহির চন্দন, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকী, সিপিবির সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স, সিপিবির কেন্দ্রীয় কমিটির সংগঠক জাহিদ হোসেন খান প্রমূখ।

সিপিবি সভাপতি বলেন, পল্টন ময়দানের বোমা হামলার পর আলামত সংগ্রহ না করে সিপিবির নেতাকর্মীদের উপর পুলিশ বাহিনী লাঠিচার্জ করে ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। তৎকালীণ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও পুলিশ কমিশনার ‘এই হামলা দলের আভ্যন্তরীণ কোন্দলের কারণে হয়েছে’ বলেও মন্তব্য করেন। আওয়ামী লীগের সমাবেশে ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলার পরও বিএনপি সরকার একই কাজ করেছিল। যা মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে। তিনি পল্টন হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানান।

অস্থায়ী বেদীতে শ্রদ্ধা নিবেদন করে সিপিবি, বাম গণতান্ত্রিক জোট, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ), বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি, বাসদ (মার্কসবাদী), ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগ, গণসংহতি আন্দোলন, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, বামঐক্য ফ্রন্ট, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র, উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী, কৃষক সমিতি, ক্ষেতমজুর সমিতি, যুব ইউনিয়ন, ছাত্র ইউনিয়ন, গার্মেন্ট টিইউসি, বাংলাদেশ হকার্স ইউনিয়ন, সিপিবি ঢাকা কমিটি, একতা, সিপিবি নারী সেল এবং ঢাকা নগরের বিভিন্ন থানা ও শাখা।

উল্লেখ্য, ২০০১ সালের ২০ জানুয়ারি রাজধানীর পল্টন ময়দানে সিপিবির মহাসমাবেশে বোমা হামলা চালায় প্রতিক্রিয়াশীল ঘাতক চক্র। এই হামলায় খুলনা জেলার বটিয়াঘাটা উপজেলার সিপিবি নেতা হিমাংশু মণ্ডল, রূপসা উপজেলার সিপিবি নেতা ও দাদা ম্যাচ ফ্যাক্টরীর শ্রমিক নেতা আব্দুল মজিদ, ঢাকার ডেমরা থানার লতিফ বাওয়ানি জুটমিলের শ্রমিক নেতা আবুল হাসেম, মাদারীপুরের নেতা মোক্তার হোসেন ঘটনাস্থলেই মারা যান।

ওই ঘটনায় আহত খুলনা বিএল কলেজের ছাত্র ইউনিয়ন নেতা বিপ্রদাস রায় ঢাকা বক্ষব্যাধি হাসপাতালে ওই বছরেই ২ ফেব্রুয়ারি মৃত্যুবরণ করেন। বোমা হামলায় শতাধিক নেতাকর্মী আহত হন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা